১১ বছর আগে স্বা’মীর প্রা’ণ গিয়ে’ছিল সড়’কে, সন্তা’নেরও হলো একই মৃ’ত্যু

ঠিক ১১ বছর আগে ২০১০ সালে ঢাকার আ’সাদ গে’টে বাস চা’পায় মা’রা যান মো. আবু বকর শেখ। কি’শোরী বয়’সেই সড়’ক দুর্ঘ’ট’নায় স্বামী’কে হা’রান আক’লিমা বেগম। মাত্র দেড় বছ’রের ছে’লে সাকিবকে আঁ’ক’ড়ে পড়ে ছিলেন স্বামীর ভি’টায়।

অভাব অন’টনেও স্বা’মীর স্ব’প্ন পূ’রণ করতে ছে’লেকে কোর’আ’নের হাফেজ বানাতে মা’দ্রা’সায় ভ’র্তি করে’ছিলেন। মাত্র ১৩ বছর বয়সে আট পারা কোরআনের হাফেজ হয়েছিলেন। কিন্তু গত শনিবার রাতে স’ড়’ক দুর্ঘ’টনায় তারও প্রা’ণ যায়।

বাগেরহাটের ফকিরহাটে গত শনিবার রাতে থ্রি-হু’ইলার সি’এন’জি ও ট্রা’কের মু’খো’মুখি সং’ঘ’র্ষে চার মাদ্রাসা শি’ক্ষা’র্থী নি’হত হয়। তার একজন উপজে’লার পিল’জ’ঙ্গ গ্রামের ১৩ বছ’রের কি’শো’র শে’খ মো. আব্দু’ল্লাহ আল সাকিব।

সাকিবের বাবা মো. আবু বক’র শেখ ২০১০ সালে ঢাকার আসাদ গেটে বাস চাপায় মা’রা যান। স্বামীর পর ছে’লেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় বোনকে সামাল দিতে হিম’শিম খা’চ্ছি’লেন সাকি’বের বড় মামা মো. ইস’মাইল ফরা’জী।

স্বামী ও সন্তান হা’রা’নোর বেদ’নায় এখন কাতর আ’কলিমা বেগম। পাগ’লের মতো বারবার প্র’শ্ন করেন, কেন রা’স্তায় গেলে জীবন ঝ’রে যায়? কে’নইবা সন্তা’নের আ’গে তিনি মা’রা গে’লেন না!

আক’লিমা বে’গম বলে’ন, সন্তা’নে’র বি’নিময়ে কো’নো ক্ষ’তি’পূ’রণ তিনি চান না। শু’ধু স’ড়ক নি’রা’পদ হোক। পিল’জংগ ইউ’নিয়ন পরিষদের চেয়ার’ম্যান মোড়ল জা’হিদুল ইস’লাম বলেন, দুর্ঘ’টনার পর সান্ত্বনা দিতে গিয়ে নি’জেই বা’ক’রু’দ্ধ হয়ে গেছেন।

উপজে’লা নি’র্বাহী ক’র্ম’ক’র্তা সান’জিদা বেগম বলেন, যোগা’যোগ ব্যবস্থার উন্ন’য়’নের স’ঙ্গে স’ঙ্গে স’ড়’ক যেন নিরা’পদ হয় তা নি’শ্চিত করতে হবে।