হরতালে বাধা দিলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

হেফাজতে ইসলামের ডাকা রবিবারের হরতালে বাধা দিলে আরও কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দলটির মহাসচিব নূরুল ইসলাম। পূর্বঘোষণা অনুযায়ী জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে জড়ো হয়ে শনিবার (২৭ মার্চ) বিক্ষোভ থেকে তিনি এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। বিক্ষোভ হলেও সেখান থেকে কোনো মিছিল বের করেনি দলটি। শান্তিপূর্ণ ভাবেই এদিন তাদের কর্মসূচি শেষ করেছে ইসলামি দলটি।

গতকাল শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে বায়তুল মোকাররম প্রাঙ্গণে পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে শতাধিক মানুষ আহত হন। সংঘর্ষের খবর ছড়িয়ে পড়লে চট্টগ্রামের হাটহাজারী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিক্ষোভ করেন হেফাজতে ইসলামের নেতা-কর্মীরা। হাটহাজারীতে বিক্ষোভ করার সময় গুলিতে চারজন এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একজন নিহত হন। যাদের নিজেদের কর্মী বলে দাবি করছে হেফাজতে ইসলাম।

সংঘর্ষে নিহত হওয়ার প্রতিবাদের শনিবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ ও রবিবার হরতালের ডাক দেয় হেফাজতে ইসলাম। পূর্বঘোষিত কর্মসূচিতে অংশ নিতে শনিবার হেফাজতের নেতা-কর্মীরা সকাল থেকে বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেটে আসতে শুরু করে। মসজিদের বাইরে পুলিশসহ অন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সতর্ক অবস্থান নিয়েছেন সকাল থেকেই।

পুলিশের একটি দল পল্টন মোড়ে অবস্থান নেয়। অন্যদিকে র‍্যাব বায়তুল মোকাররম মার্কেটের পাশে অবস্থান নেয়। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল জোনের উপকমিশনার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা যেকোনো সংঘর্ষ ও বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করেছি বায়তুল মোকাররম এলাকায়।’ বিশৃঙ্খলা ঘটে এমন কর্মসূচি না দেয়ার জন্য ইসলামি দলগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি
সূত্র নয়া দিগন্ত

শেয়ার করুন