স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার বসানো কচ্ছপ উদ্ধার

ভারতের গবেষণা কাজে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার বসানো বিলুপ্ত প্রজাতির বাটাগুরবাস্কা কচ্ছপ উদ্ধার হয়েছে। শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার কাজীরহাট এলাকায় স্থানীয় এক জেলের জালে আটকে পড়ে এ কচ্ছপটি। রবিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার বসানো কচ্ছপটি বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদাপাই রেঞ্জের করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেদ্রে নিয়ে আসা হয়েছে।

সুন্দরবন করমজল পর্যটন ও বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাওলাদার মো. আজাদ কবির জানান, শনিবার খুলনার দিঘলিয়ার গাজীরহাটে কচ্ছপটি ধরা পড়ার পর সেটি প্রথমে পুলিশ উদ্ধার করে। এরপর বন বিভাগের খুলনা অঞ্চলের সিএফ মিহির কুমার দো খবর পেয়ে আমাদেরকে জানালে আমরা কচ্ছপটি সেখান থেকে এনে করমজলে রেখেছি। পরবর্তী সময়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশনার পর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

তিনি আরও জানান, বাটাগুর বাসকা বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির কচ্ছপ। এই প্রজাতির কচ্ছপের গতি ও আচরণবিধি, বিচরণ ক্ষেত্র, খাদ্যভাস ও প্রজনন সম্পর্ক জানতে ভারতের টাইগার প্রজেক্ট গত ১৫ ফেব্রুয়ারি দেশটির সজনখালী এলাকার কুলতলীত স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার বসানো ১০টি পুরুষ কচ্ছপ অবমুক্ত করে। দিঘলিয়ায় জেলের জালে আটকা পড়া কচ্ছপটিও এই গবেষণারই অংশ।

কুলতলী থেকে নদী-সাগর হয়ে সেটি বাংলাদেশে চলে এসেছে। আজাদ কবির আরও জানান, ভারতের এ ধরনের আরও একটি কচ্ছপ পূর্ব সুন্দরবনের বলেশ্বর ও সাউথখালীর নদীতে বিচরণ করছে। ভারতের টাইগার প্রজেক্টে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার বসানো ১০টি বাটাগুর বাসকার পাশাপাশি দুইশ কচ্ছপ এই গবেষণা কাজে নিয়োজিত রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.