সেই ১৭ জনের জানা’জা হলো একই মাঠে

রাজশাহীর কা’টাখালী’তে যা’ত্রীবা’হী বা’সের সঙ্গে সং’ঘর্ষে’র পর পি’কনি’কের এ’কটি মাই’ক্রোবা’সের গ্যা’স সি’লিন্ডা’র বি’স্ফো’রণ থেকে সৃ’ষ্ট আ’গু’নে পু’ড়ে নি’হ’ত হয় ১৭ জন । শু’ক্রবা’র (২৬ মার্চ) দুপুর পৌনে ২টার দিকে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কের কাপাশিয়া এলাকায় এ দু’র্ঘ’ট’না ঘ’টে। উ’ক্ত স’ড়’ক দু’র্ঘট’নায় নি’হ’ত ১৭ জ’নের জা’না’জা একই মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২৭ মার্চ) রাত ১১টার দিকে পী’রগ’ঞ্জ উ’পজে’লা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার মাঠে প্র’থমে আ’টজনের ও পৌনে ১২টার দিকে বাকি ন’য়জ’নের জা’না’জা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ম’রদে’হগু’লো’র ম’য়না’তদ’ন্ত হয়। পরে বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত স্বজনদের কাছে ম’রদে’হগু’লো হ’স্তা’ন্তর করে কা’টাখা’লী থা’না পু’লিশ। সেখান থেকে পি’কআ’প ভ্যা’ন, মা’ইক্রো’বাসে ও অ্যা’ম্বুলে’ন্সে করে ম’রদেহ’গু’লো পী’রগ’ঞ্জে আনা হয়।

দু’র্ঘট’নায় নি’হ’ত ১৭ জনের মধ্যে ১০জনই রা’মনা’থপু’র এ’কই ই’উনি’য়’নের বা’সিন্দা। বাকি ৭ জনের তিনজন পী’রগ’ঞ্জ পৌরসভার প্র’জাপা’ড়ার, এ’কজ’ন থা’নাপা’ড়ার, দুইজন রায়পুর ইউনিয়নের দ্বাড়িকাপাড়ার এবং আরেকজন মিঠিপুর ইউনিয়নের দূরামিঠিপুর দক্ষিণপাড়ার বাসিন্দা।

রামনাথপুর ইউনিয়নের বড় মজিদপুরে একই পরিবারের পাঁচজনকে ও বড় রাজারামপুরে আরেকটি পরিবারের চারজনকে একসঙ্গে পারিবারিক ক’বরস্থা’নে দা’ফন করা হয়েছে। এছাড়া নি’হ’ত অ’ন্যদে’র পা’রিবা’রিক ও স্থা’নীয় ক’বরস্থা’নে দাফন করা হয়েছে।

নি’হত’রা হলেন- রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের মহজিদপুর গ্রামের ফুল মিয়া (৪০), তার স্ত্রী নাজমা বেগম (৩৫), ছেলে ফয়সাল মিয়া (১৫), মেয়ে সুমাইয়া (৭) ও ছোট মেয়ে সাজিদা (৩) ; একই ইউনিয়নের দুরামিঠিপুর গ্রামের সাইদুর রহমান (৪৫), চৈত্রকোল ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামের ব্যবসায়ী সালাউদ্দিন (৩৯), তার স্ত্রী শামছুন্নাহার (৩২), শ্যালিকা কামরুন্নাহার বেগম (২৫), ছেলে সাজিদ (১০) ও মেয়ে সাবাহ খাতুন (৩); পীরগঞ্জ পৌরসভার প্রজাপাড়ার মোটরসাইকেল মেকার তাজুল ইসলাম ভুট্টো (৪০), তার স্ত্রী মুক্তা বেগম (৩৫), ছেলে ৮ম শ্রেণির ছাত্র ইয়ামিন (১৪); রায়পুর ইউনিয়নের দ্বাড়িকাপাড়া গ্রামের মোকলেছার রহমান (৪০), তার স্ত্রী পারভীন বেগম (৩৫), ছেলে পাভেল মিয়া (১৮)।

মা’ইক্রোবা’স চা’লক পৌ’রসভা’র পঁ’চাকা’ন্দর গ্রামের হানিফ মিয়া ওরফে পঁচা (৩০) রা’জশা’হী মেডিকেল কলেজ হা’সপা’তালে চি’কিৎ’সা’ধীন। তার অবস্থা আ’শঙ্কা’জন’ক।

অন্যদিকে হানিফ পরিবহনের বাসটি ম’হাস’ড়কের উ’ল্টো দিকে গিয়ে খাদে পড়ে যায়। সেখান থেকেও ৯ জন’কে আ’হত অ’বস্থা’য় উ’দ্ধা’র করে রা’জশা’হী মে’ডিকে’লে নেওয়া হয়েছে। আ’রএম’পি পু’লি’শের ক’র্মক’র্তারা জানান, মা’ইক্রো’বাস ও হানিফ পরিবহনের বাসটি ১৩০ কিলোমিটার গতিতে চলছিল। মা’ইক্রো’র আ’গু’নে লে’গুনা’টিও ভ’স্মীভূ’ত হয়। তবে সেখানে কো’নো যাত্রী বা চা’লক ছিলেন না।

শেয়ার করুন