সাহেদের সাথে সাবেক স্ত্রীর নাম জড়ানোয় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন অপূর্ব

করোনায় ভুয়া রিপোর্ট তৈরি ও নানা প্রতারণামূলক কাজের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত থাকায় র‍্যাবের হাতে গ্রেফতার হয়েছে রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ। প্রতারক জগতের মাস্টার মাইন্ড সাহেদ শুধু বিভিন্ন সেক্টরে প্রতারণা করেই ক্ষান্ত হননি। তার ফাঁদে পড়ে দুই তারকা দম্পতির সংসার তছনছ হয়ে গেছে।

ডিবির কাছে দেয়া সাহেদের এই তথ্যের পরেই টিভি পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা অপূর্বের সাবেক স্ত্রী নাজিয়া হাসান অদিতিকে নিয়ে সাহেদের সাথে জড়িয়ে বেশ কিছু নিউজ পোর্টালে সংবাদ প্রকাশিত হয়। যেগুলোতে সাহেদের সাথে অদিতির সম্পর্কের জেরে বিবাহ-বিচ্ছেদ হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। আর বিষয়টি নজরে আসতেই চটেছেন অপূর্ব। শুধু তাই নয় মামলার প্রস্তুতিও নিয়েছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দীর্ঘ এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে এসব তথ্য জানান অপূর্ব।

স্ট্যাটাসে অপূর্ব লিখেছেন, কোনো ধরনের ভণিতা না রেখেই বলছি, গত দুইদিন ধরে দেখা যাচ্ছে কিছু কিছু ভুঁইফোড় অনলাইন পত্রিকা কোনো ধরনের তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই আমার সাবেক স্ত্রী নাজিয়া হাসান অদিতি এবং আমার বিচ্ছেদের ব্যাপারে অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ মিথ্যা প্রোপাগাণ্ডা ছড়াচ্ছেন।

যা আমার এবং অদিতির জন্য অত্যন্ত বিব্রতকর। আমি আগেও বলেছিলাম অদিতির সঙ্গে আমি এখন সাংসারিক জীবনে না থাকলেও সে আমার সন্তানের মা। সুতরাং অদিতির সম্মান নিয়ে বা তার নামের সঙ্গে জড়িয়ে তৃতীয় কারো নাম নিয়ে যে বা যারা কোনো ধরনের নোংরা খেলায় মাতবে এদের কাউকেই ছেড়ে কথা বলবো না।

গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে দেশের একজন দুর্নীতিবাজের সঙ্গে আয়াশের মাকে জড়িয়ে এই ধরনের মিথ্যা এবং কাল্পনিক ঘটনা প্রচার করার জন্য দেশের একজন সুনাগরিক হিসাবে এর তীব্র প্রতিবাদ করছি। শুধু প্রতিবাদই না আমাদের ব্যক্তিগত জীবনের ঘটনা নিয়ে এই ধরনের নোংরা মিথ্যাচার ছড়ানোর দায়ে আমি এই সকল পত্রিকার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করার প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। আজ-কালের ভেতরে সম্পন্ন হবে।

অপূর্ব আরো লিখেছেন, আমি খুব স্পষ্টভাবে বলতে চাই- অদিতি আমার স্ত্রী ছিল এবং এখন সে আমার সন্তানের মা। আমার নয় বছরের সাংসারিক জীবনে অদিতিকে নিয়ে আমার কোনো ধরনের অভিযোগ নেই এবং ভবিষ্যতেও থাকবে না। বরং আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ মানুষদের ভেতরে অদিতি একজন যাকে আমি আজীবন সম্মান করে যাবো।

তার সঙ্গে এটাও বলতে চাই অদিতির যেকোনো সম্মানহানিকর ব্যাপারে আমি এভাবেই ওর পাশে থাকবো। আমি আবারো বলছি অদিতি আমার স্ত্রী না থাকলেও সে আমার সন্তানের মা। সুতরাং আয়াশের মায়ের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের কোনো ষড়যন্ত্র বা নোংরামিকে আমি মেনে নেবো না।

এই অভিনেতা যোগ করে লিখেছেন, অদিতি এবং আমাকে জড়িয়ে এই ধরনের মিথ্যা অপপ্রচার চালানো অনলাইন পত্রিকাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আমি আইন প্রয়োগকারী সংস্থাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। সেই সঙ্গে আবারো বলছি এই ধরনের কুরুচিপূর্ণ মিথ্যা কল্পকাহিনী ছড়ানোর দায়ে আমি ঐ সকল অনলাইন পত্রিকার বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।

আমি আরো স্পষ্ট ভাষায় জানাতে চাই যে বা যারা এই নোংরা খেলার সঙ্গে জড়িত তাদের প্রত্যেককে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনবো। অপূর্ব তার ওই পোস্টে সবশেষে লিখেছেন, আমি আশা করবো মূল ধারার গণমাধ্যমগুলো আমাকে এই ব্যাপারে সত্য প্রকাশ করে সহায়তা করবেন। কারণ দীর্ঘ সময় মিডিয়াতে কাজ করার সুবাধে তাদের কাছে আমার এই দাবি থাকতেই পারে

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: