সাকিবের দোষারোপ, যা বললেন আকরাম-দুর্জয়

শনিবার রাতে এক ফেসবুক লাইভে কথা বলেছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। নিজ পেজে শেয়ার করা ঐ লাইভ অনুষ্ঠানে সাকিব অনেক কথাই বলেছেন। যেখানে পূর্বসুরী আকরাম খানের দিকে রীতিমতো অভিযোগের তীর ছুড়েছেন সাকিব।

তার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট না খেলে ভারতের আইপিএল অংশগ্রহণের জন্য বোর্ডের কাছে ছুটি চাওয়ার আবেদন প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে সাকিব বিসিবির ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খানের দিকেই আঙুল তুলেছেন।

কোনরকম রাখঢাক না করে সাকিব সরাসরিই বলেছেন, আকরাম ভাই আমার কথাকে ভুলভাবে উপস্থাপন করছেন। আকরামকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে সাকিব বলেন, ক্রিকেট অপারেশনস জাতীয় দল নিয়ে কী কাজ করেছে, কী প্ল্যান করছে? তাদের ব্যর্থতা বা সাফল্য কী?

একইসঙ্গে হাই পারফরম্যানস ইউনিটের সমালোচনা করতেও ছাড়েননি সাকিব, ‘আমাদের এইচপি শেষ চার-পাঁচ বছরে কয়টা খেলোয়াড় তৈরি করেছে, আমি জানি না। অনেকেই আছেন, তারা একসময় বাংলাদেশ দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তারা আসলে (বোর্ডে) কী নিয়ে কাজ করছেন, আমি জানি না।’

সাকিবের এমন বক্তব্যের বিষয়ে বোর্ডের অবস্থান কী? বোর্ড সাকিবের এমন সোজাসাপটা কথাবার্তাকে কীভাবে দেখছে? যাদের বিপক্ষে সাকিব অভিযোগের তীর ছুড়েছেন, সেই পূর্বসুরী আকরাম খান ও নাইমুর রহমান দুর্জয় কী ভাবছেন? তাদের ভাষ্যই না কী? তা জানতে উৎসুক প্রচার মাধ্যম।

আকরাম খান আর নাইমুর রহমান দুর্জয় সাকিবের অমন বক্তব্য ও অভিযোগের জবাবে কোনরকম আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেননি। জাগো নিউজের সঙ্গে মুঠোফোন আলাপে দুজনই ব্যক্তিগত আলাপচারিতায় সাকিবের অমন তীর্যক বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় হতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তবে কোন আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দিতে রাজি হননি।

আকরাম শুধু একটি কথা বলেছেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে এ নিয়ে কোন আনুষ্ঠানিক মন্তব্য করতে রাজি না। কোন মন্তব্য করতেও চাই না কারণ আমি একা না, দুর্জয়কে (নাইমুর রহমান) নিয়েও কথা বলেছে সাকিব। কাজেই আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে এটা জানাব।’

একই কথা নাইমুর রহমান দুর্জয়েরও। তিনিও জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ‘আসলে বিষয়টা নিয়ে কথা বলতে চাচ্ছি না। কারণ কথাগুলো ব্যক্তিগত পর্যায়ের নয়। ঐ বক্তব্যে বিসিবিরও সংযুক্তি আছে। কাজেই এটা বোর্ডই দেখবে। হয়তো বোর্ড থেকেই আনুষ্ঠানিক বক্তব্য আসবে। আমি এ নিয়ে কোন মন্তব্য করতে চাই না।’

এদিকে সাকিবের এ আচরণ ও কথাবার্তা শুধু কারও বিপক্ষে অভিযোগের তীর না, খোদ বিসিবিও এর সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে বিসিবির ভাষ্য কী? তা নিয়েও নানা গুঞ্জন। আজ প্রায় সারাদিনই গুঞ্জন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন হয়তো এ ব্যাপারে মিডিয়ায় ব্রিফ করবেন। তবে প্রতিবেদন তৈরীর সময় পর্যন্ত বিসিবি সভাপতি মিডিয়ার সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

আকরাম খান ও নাইমুর রহমান দুর্জয়ের কথা শুনে মনে হয়েছে, বোর্ড থেকে একটা আনুষ্ঠানিক বিবৃতি প্রকাশিত হবে। তবে কবে, কখন? তা নিশ্চিত নয়।

সাকিবের বক্তব্যের বিষয়ে কথা বলতে চান না বিসিবি সিইও

সাকিবের কথাবার্তায় ব্যাপক সাড়া পড়েছে দেশের ক্রিকেট মহলে। একপক্ষের মন্তব্য, ব্যাটে-বলে সাকিব যেমন ধারালো পারফরম্যান্স দেন, তেমনি লাইভেও সোজাসাপটা কথা বলেছেন। আরেকপক্ষ বলছে, সাকিব যত বড় তারকাই হন না কেন, তিনি বোর্ডের বেতনভুক্ত ক্রিকেটার। তার এমন কথাবার্তায় কি বোর্ডের কোড অব কন্ডাক্টের লঙ্ঘন করছেন না?

এ বিষয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন মুখ ফুটে কিছু না বললেও, ভাবা হচ্ছিল বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন হয়তো মিডিয়ায় কথা বলবেন। কিন্তু তিনিও মুখে কুলুপ এটে বসে আছেন।

আজ সোমবার সারা দিনে তিনি মিডিয়ার সঙ্গে সাকিবের বক্তব্য নিয়ে কোন কথা বলেননি। জাগো নিউজের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে, মুঠোফোনে নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন শুধু একটি কথাই বলেছেন, ‘এটা একটা স্পর্শকাতর বিষয়, আমি তা নিয়ে কথা বলতে চাই না।’

শেয়ার করুন