ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে, মদের বোতল নিজেদের জন্য সাজাইছি: মৌ

ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে, মদের বোতল নিজেদের জন্য সাজাইছি: মৌ

রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ মদ ও বাসায় মদের বার রাখার অভিযোগে মডেল মরিয়ম আক্তার মৌকে আটক করে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা (ডিবি) বিভাগ। রোববার গভীর রাতে বাবর রোডে নিজ বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। এ সময় তার বাসা থেকে বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা (উত্তর) শাখার যুগ্ম-কমিশনার হারুন-অর-রশীদ বলেন, মডেল মরিয়ম আক্তার মৌয়ের বিরুদ্ধে আমাদের কাছে অনেক আগে থেকেই অভিযোগ ছিল। মৌয়ের বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মদ ও তার বাসায় বারের সন্ধান পাওয়া গেছে।

মডেল মৌয়ের বাসার ভেতরে ড্রয়িং রুমের পাশেই একটি মিনি বার দেখতে পাওয়া যায়। ডিবি পুলিশের ধারণা— মডেল মৌ তার বাসাটিকে ‘মদের বার’ হিসেবেই ব্যবহার করতেন। তবে বিষয়টি অস্বীকার করেছেন মৌ। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘এটি বার বলতে— আমরা পুরো বাসা সাজাইছি। শখ করে, নিজেদের জন্য।

আপনারা যে আজকে আসবেন, সেটি তো আমরা জানি না। কিন্তু আপনারা এসে কোনো লোক পাইছেন? এগুলো (মদের বোতল) আমরা নিজেদের জন্য সাজাইছি। মৌ দাবি করেন, ষড়যন্ত্র করে তাকে ফাঁসানো হয়েছে। কেন আপনাকে টার্গেট করা হলো— আপনার বিরুদ্ধে কেন ষড়যন্ত্র করা হলো, জানতে চাইলে মৌ বলেন, ওর রিলেশন ছিল।

এ সময় সাংবাদিকরা মডেল মৌয়ের কাছে জানতে চান, কার সঙ্গে কার রিলেশন ছিল। পরে তিনি এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে ডিবির কাছে অনুমতি চান। কিন্তু তাকে অনুমতি দেওয়া হয়নি। পরে ডিবি কর্মকর্তাদের বলতে শোনা যায়, পাশের ঘরে আরেকটি মদের বার পাওয়া গেছে। সেখানে গিয়ে আরও ১২টি বিদেশি মদের বোতল জব্দ করা হয়। এ সময় মৌকে বারবার বলতে শোনা যায়, আমার বাসা মদের বার না।

সরেজমিন মৌয়ের বাসায় গিয়ে দেখা যায়, গণমাধ্যমকর্মীদের উপস্থিতিতে ওই বাসায় অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছিল। মিরপুর রোডসংলগ্ন ২২/৯ বাবর রোডের ওই বাসার নিচতলায় থাকতেন মৌ। বাসার ভেতরে ড্রয়িং রুমের পাশেই একটি মিনি বার দেখা গেছে। বাসার ভেতরের বেডরুমের একটি ড্রয়ার থেকে পাঁচ প্যাকেট ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। এ ছাড়া ওই বেডরুমের ভেতরে আরেকটি ড্রেসিং রুম থেকে অন্তত এক ডজন বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়।

শেয়ার করুন