শাহবাগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি

নোয়াখালীতে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনসহ ধর্ষণের বিভিন্ন ঘটনার প্রতিবাদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করা হয়েছে। সোমবার (৫ অক্টোবর) রাজধানীর ব্যস্ততম সড়ক শাহবাগ মোড় অবরোধসহ বিক্ষোভ মিছিল থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেন শতাধিক মানুষ। বেলা ১১টার দিকে মিছিলসহ শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন ছাত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা।

এ সময় তারা সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন এলাকায় সংঘটিত ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদ এবং জড়িতদের বিচার দাবি করে স্লোগান দিতে থাকেন। বিভিন্ন রাজনৈতিক ও নাগরিক সংগঠনের নেতারা সংহতি জানিয়ে বিক্ষাভে যোগ দেন। পরে শাহবাগ মোড় অবরোধ ও বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ করেন তারা। সোমবার বিকেলে সেখান থেকে পরবর্তী কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়।

এ সময় ছাত্র ইউনিয়েনর সাধারণ সম্পাদক অনিক রায় বলেন, ধর্ষণের দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা হিসেবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে পদত্যাগ করতে হবে। এ দাবিতে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় কালো পতাকা মিছিল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে পদযাত্রা কর্মসূচী পালন করা হবে।

বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুরে এক গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর সোমবার আবদুর রহিম (২২) নামে অভিযুক্ত এক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এ ছাড়া ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে সন্দেহভাজন আরও দুজনকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা। আটকরা হলেন, ‘দেলোয়ার বাহিনীর’ প্রধান দেলোয়ার এবং বেলাল।

র‌্যাব-১১ এর কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল খন্দকার সাইফুর আলম জানান, সোমবার রাত ৩টার দিকে কামরাঙ্গীরচর এলাকা থেকে র‌্যাবের একটি দল বেলালকে এবং অপর একটি দল নারায়ণগঞ্জের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে দেলোয়ারকে আটক করেছে।

জানা যায়, ওই ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকার নূর ইসলাম মিয়ার বাড়িতে ২০/২৫ দিন আগে এ ঘটনা ঘটলেও, গত রবিবার গৃহবধূকে নির্যাতনের ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

ভিডিও চিত্রে ভুক্তভোগী গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে তার মুখমণ্ডলে উপুর্যপুরি লাথি ও বেধড়ক মারধর করতে দেখা যায়। এসময় ওই গৃহবধূ বহুবার পায়ে ধরে এবং বাবা-বাবা বলে ডাকলেও নির্যাতন চালিয়ে যায় বখাটেরা।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আলমগীর হোসেনের নজরে আসলে তিনি এ বিষয়ে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বেগমগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ প্রদান করেন।

সম্প্রতি সিলেটের এমসি কলেজে গৃহবধূ সংঘবদ্ধ ধর্ষণসহ বেশ কিছু ধর্ষণের ঘটনা দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। গত ২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় স্বামীর সামনে থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে নববধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পরেরদিন ভোরে ছয়জনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাতপরিচয় আরও ২/৩ জনকে অভিযুক্ত করে শাহপরাণ থানায় মামলা দায়ের করেন ভিকটিমের স্বামী।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: