শাশুড়ির ১০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিলেন আ.লীগ নেতা!

আগ্নেয়াস্ত্রের মুখে শাশুড়িকে জিম্মি করে শত কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আনোয়ার হোসেন রানা নামের বগুড়ার প্রভাবশালী এক আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে। গত বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) রাতে সদর থানায় তার বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের করেছেন তার শাশুড়ি দেলওয়ারা বেগম। এতে তার মেয়ে আকিলা সরিফা সুলতানা খানম আঞ্জুয়ারাকেও অভিযুক্ত করা হয়েছে। এর আগেও চার শ্যালিকা রানার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রী ও বগুড়ার পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত আবেদন করেন। আনোয়ার হোসেন রানা জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য।

অভিযোগের ব্যাপারে আওয়ামী লীগ নেতা রানা দাবি করেন, ভায়রা ও শ্যালিকারা তার শাশুড়িকে জিম্মি করে থানায় মিথ্যা এজাহার দিতে বাধ্য করেছেন। এছাড়া ভায়রারা জামায়াত-বিএনপির ডোনার। তারা তার রাজনৈতিক ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের যোগসাজসে ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শাশুড়ী দেলোয়ারার শরীরিক অসুস্থতার কারণে গত পাঁচ বছর জামাই আনোয়ার হোসেন রানা ও মেয়ে আকিলা সরিফা সুলতানা খানম আঞ্জুয়ারা তার বাড়িতেই থাকেন। অসুস্থতার সুযোগে ও তাদের প্রস্তাবে মৌখিকভাবে বিভিন্ন ব্যবসা পরিচালনার দায়িত্ব দেন তাদের। পরবর্তীতে সরিফ বিড়ি ফ্যাক্টরির ম্যানেজার কাম ক্যাশিয়ার নজরুল ইসলাম, সরিফ সিএনজি লিমিটেডের ম্যানেজার হাফিজার রহমান ও দেলওয়ারা-সেখ শরিফ উদ্দিন সুপার মার্কেটের ম্যানেজার ও রানার সহকারী তৌহিদুল ইসলাম যোগসাজসে জালিয়াতি, প্রতারণা ও দুর্নীতির আশ্রয় নেয়। তারা ধারালো অস্ত্রের মুখে স্ট্যাম্প, ব্যাংকের চেক, এফডিআর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কাগজপত্রে স্বাক্ষর নেয়। পরবর্তীতে ভুয়া কাগজ সৃষ্টি করে ২০১৫ সালের ১ জুন থেকে ২০২০ সালের ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ব্যাংকের এফডিআর ভেঙে ৫০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করে। এছাড়া ব্যবসা ও ব্যাংক থেকে আরও ৫০ কোটি টাকা উত্তোলনের পর আত্মসাৎ করেছে।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, প্রধান আসামি আনোয়ার হোসেন রানা ওরফে ক্যালা আগ্নেয়াস্ত্র ধরে এসব ফাঁস না করতে নিষেধ করেছে। হত্যার হুমকি দেওয়ায় তিনি এতদিন বিষয়টি গোপন রাখেন। গত ২১ সেপ্টেম্বর আসামি জামাই আনোয়ার হোসেন রানা ওরফে ক্যালা ও মেয়ে আকিলা সরিফা সুলতানা খানম আঞ্জুয়ারা বিভিন্ন আসবাবপত্র নিয়ে বাড়ি থেকে চলে যায়।

শনিবার (৩ অক্টোবর) সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবির জানান, এজাহার পাওয়া গেছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: