শারী’রিক মেলামেশায় না করায় ছাত্রীর ন’গ্ন ছবি ফেসবুকে

বগুড়ার আদমদীঘি গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের ২য় বর্ষের এক ছাত্রীকে (১৭) অ’পহ’রণ করে বোডিংয়ে নিয়ে মোবাইল ফোনে ছাত্রীর ন’গ্ন ছবি ও ভি’ডিও ধারণ করে শারী’রিক মেলামেশায় বাধ্য করতে না পেরে ন’গ্ন ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে ফেমাস ইসলাম (২৫) নামের এক যুবককে প’র্নোগ্রাফি মামলায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২৭ জুন) আদমদীঘি থানায় ছাত্রীর মা বাদি হয়ে ফেমাস ইসলামকে আসামি করে মামলা দায়ের করে। রাত্রিতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মামলার অভিযুক্ত আসামি ফেমাস ইসলামকে রানীনগর বাজার এলাকা থেকে গ্রে’ফতার করে। ফেমাস ইসলাম নওগাঁ জেলার রানীনগর উপজেলার কাটরাসাইন গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে।

আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি জালাল উদ্দীন জানান, আদমদীঘির গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের ওই ছাত্রী বিদ্যালয়ে যাওয়া আসার সময় ২০১৮ সালের ১০ নভেম্বর বেলা ১১টায় ফেমাস ইসলাম আদমদীঘির ডাকবাংলো এলাকা থেকে সিএনজি যোগে অপহ’রণ করে নওগাঁর বরুনকান্দি মোড়ে একটি আবাসিক হোটেলের কক্ষে আটক রেখে জোর করে মোবাইল ফোনে বেশ কিছু আপত্তিকর ন’গ্ন ছবি ও ভি’ডিও ধারণ করে।

এরপর তার সাথে প্রে’ম নিবেদন ও শারী’রিক সম্পর্ক না করলে ধারণ করা ছবি ও ভিডিও গুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হু’মকি দেয়। এতে ছাত্রী রাজি না হওয়ায় গত ২৫ জুন ধারনকৃত সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়। পরে শনিবার ২৭ জুন মা বাদি হয়ে আদমদীঘি থানায় মামলা দায়ের করলে তাকে গ্রে’ফতার করে আজ ২৮ জুন আদালতে প্রেরণ করে।

শেয়ার করুন