লিপি ওসমানের ভালোবাসায় সন্তানের বাঁচার স্বপ্ন দেখছেন দিনমজুর বাবা

চার বছরের শিশু জাহিদুলের হৃদযন্ত্রে ধরা পড়েছে ছিদ্র ও ব্লক। চিকিৎসা করতে প্রয়োজন তিন লাখ টাকা। কিন্তু দিনমজুর বাবার সামর্থ্য নেই তাকে চিকিৎসা করানোর। এমন বিপদে তাদের পাশে এসে দাঁড়ান নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের স্ত্রী ও নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সালমা ওসমান লিপি।

শিশু জাহিদুল ইসলাম নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার কাশিপুর ব্যাংক কলোনি এলাকার দিনমজুর পারভেজ মিয়ার ছেলে। তার বাবা দিনমজুর। তাই সন্তানের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করা তার পক্ষে অসম্ভব।জাহিদুলের এ করুণ অবস্থা এক গণমাধ্যমকর্মীর মাধ্যমে জানতে পারেন সালমা ওসমান লিপি। পরে শিশুটির চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন তিনি।

সালমা ওসমান লিপি বলেন, ‘বাংলাদেশে একজনই ডাক্তার আছে যিনি এ ধরনের রোগীদের অস্ত্রোপচার করেন। আমি ওই ডাক্তারের ব্যক্তিগত সহকারীর সঙ্গে একাধিকবার কথা বলি অস্ত্রোপচারের বিষয়ে। পরে ডাক্তার রাজি হন।

আগামী ১৮ এপ্রিল অস্ত্রোপচার করবেন। পরিবার থেকে ৫০ হাজার টাকা যোগাড় করেছে। আর বাকি টাকা আমি দিয়ে দিয়েছি। আশা করছি শিশুটি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবে।’

জাহিদুলের বাবা পারভেজ মিয়া বলেন, গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে জাহিদুল অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ডাক্তার দেখানো হয়। ওই সময় ডাক্তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জাহিদুলের হার্টে ছিদ্র ও ব্লক আছে বলে জানান।

তিনি বলেন, ‘চিকিৎসক জানান জাহিদুলের দ্রুত অস্ত্রোপচার করতে হবে, তা না হলে জাহিদুলকে বাঁচানো সম্ভব না। অ;স্ত্রো;পচা;রের জন্য তিন লাখ টাকা খরচ হবে। কিন্তু এত টাকা যো;গাড় করা আ;মার পক্ষে স;ম্ভব ছিল না।

আমি দিনমজু;র। দিনে কাজ করে যত টাকা পাই তা দিয়ে সং;সা;রই ঠিকমতো চলে না। সন্তানরে কিভাবে বাঁচাব। তারপরও যা কিছু ছিল সব বিক্রি করে ও মানুষের কাছ থেকে ধারদেনা করে ৫০ হাজার টাকা যোগাড় করি। কিন্তু আরও আড়াই লাখ টাকা কোথায় পাব? এজন্য সন্তানকে বাঁচানোর আশাই ছেড়ে দিয়েছিলাম।

ম্যাডামের (লিপি ওসমানের) সহায়তায় আমার ছেলে সুস্থ হয়ে উঠবে। আমি আল্লাহর কাছে দোয়া করি তিনি ও তার পরিবারকে আল্লাহ ভালো রাখুক।’

শেয়ার করুন