রিজেন্ট কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে জাল সার্টিফিকেটও দিতেন শাহেদ: র‌্যাব

প্রতারণা মামলার পলাতক আসামি ও রিজেন্টের চেয়ারম্যান শাহেদকে গ্রেফতার করতে দেশের সব জায়গায় অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) দুপুরে র‌্যাব সদর দফতরে ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক আশিক বিল্লাহ। এসময় তিনি জানান, শাহেদের মত প্রতারণায় অন্য যারা জড়িত তাদেরও আনা হবে আইনের আওতায়।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক আশিক বিল্লাহ বলেন, ‘প্রতারণার জগতে শাহেদ আইডল। প্রতারণাকে কিভাবে ব্যবহার করে সরল সাধারণ মানুষের সাথে ঠকবাজি করে কিভাবে একটা পর্যায় আসা যায় তার অনন্য দৃষ্টান্ত শাহেদ।’

তিনি আরও বলেন, ‘নতুন করে অনেক অভিযোগই আমাদের কাছে আসছে, সর্বশেষ আমাদের কাছে যে অভিযোগ এসেছে রিজেন্ট কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেক জাল সার্টিফিকেট দিয়েছেন শাহেদ। যাতে পালিয়ে যেতে না পারে এজন্য সারাদেশসহ সীমান্তে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।’ সাহেদ যাতে দেশ থেকে পালাতে না পারেন তার জন্য সব ইমিগ্রেশন অফিসকে সতর্কবার্তা দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, পরীক্ষা ছাড়াই করোনা ভাইরাস টেস্টের রিপোর্ট দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ ওঠায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমের নেতৃত্বে রিজেন্ট হাসপাতালের মিরপুর ও উত্তরা শাখায় অভিযান চালায় র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

অভিযানে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত কমপক্ষে ৬ হাজার নকল কোভিড-১৯ টেস্ট রিপোর্ট জব্দ করে। পরের দিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশে হাসপাতাল দু’টিসহ রিজেন্টের প্রধান কার্যালয় সিলগালা করে দেয় র‍্যাব। এরপর থেকেই পলাতক রয়েছেন শাহেদ।

এ ঘটনায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহেদসহ ১৭ জনকে আসামি করে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি প্রতারণার মামলা দায়ের করা হয়। ওইদিনই রিজেন্ট হাসপাতালের দু’টি শাখাই বন্ধ ঘোষণা করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এদিকে রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহেদ করিমের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। তাকে গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: