যেভাবে এবার ঈদে পেতে পারেন ৯ দিন ছুটি

পবিত্র ঈদুল ফিতর মু’সলমানদের দুটো সবচেয়ে বড় ধ’র্মীয় উৎসবের একটি। দ্বিতীয়টি হলো ঈদুল আযহা। ধ’র্মীয় পরিভাষায় একে ইয়াওমুল জায়েজ‍ বা পুরস্কারের দিবস হিসেবেও বর্ণনা করা হয়েছে। দীর্ঘ এক মাস রোজা রাখা বা সিয়াম সাধনার পর মু’সলমানেরা এই দিনটি ধ’র্মীয় কর্তব্যপালনসহ খুব আনন্দের সঙ্গে পালন করে থাকে।

ঈদুল ফিতর বা রমজানের ঈদ বাংলাদেশের সবচাইতে বড় ধ’র্মীয় উৎসব। এই উৎসবে দেশে কমপক্ষে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় ছুটি থাকে। ঈদ মানেই আনন্দ আর এই আনন্দ পরিবারের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিতেই নাড়ির টানে বাড়ি ফেরেন মানুষ৷ সেজন্য অনেকেই সারারাত অ’পেক্ষা করেন ট্রেনের টিকে’টের জন্য কিংবা লঞ্চে ওঠেন জীবনের ঝুঁ’কি নিয়ে৷ কেউ বা বাসে।

আজ (মঙ্গলবার) বাংলাদেশ ইস’লামিক ফাউন্ডেশন এ বছরের রমজানের সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি প্রকাশ করেছে।

সূচি অনুযায়ী, রমজান শুরুর সম্ভাব্য তারিখ ৩ এপ্রিল। ৩০ রোজা পূর্ণ হলে ঈদ উদযাপন হবে ৩ মে। সেক্ষেত্রে ঈদুল ফিতরে দেশের সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবীরা ২৯ এপ্রিল থেকে ৪ মে পর্যন্ত টানা ছয় দিনের ছুটি পাবেন।

ঈদের ছুটি মূলত তিনদিন। তবে ঈদের আগে সাপ্তাহিক ছুটি ও মে দিবসের ছুটি মিলিয়ে এবার ঈদের ছুটি বেড়ে ছয় দিন হতে পারে।

ছুটির হিসাবে দেখা যাচ্ছে, ঈদের আগের শুক্রবার হচ্ছে ২৯ এপ্রিল। পরদিন শনিবার ৩০ এপ্রিল। ১ মে রবিবার শ্রমিক দিবসের সরকারি ছুটি। সোম, মঙ্গল ও বুধবার যথাক্রমে ২, ৩ ও ৪ মে ঈদের সরকারি ছুটি মিলে মোট ছুটি দাঁড়াচ্ছে ছয়দিন।

এক্ষেত্রে ৫ মে বৃহস্পতিবার কেউ ছুটি নিতে পারলে ৬ ও ৭ মে (শুক্র ও শনিবার) মিলিয়ে তিনি মোট ৯ দিন ঈদের ছুটি কা’টাতে পারবেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.