মার্কিন নাগরিকসহ দুজনকে ফেরত পাঠাল শাহজালাল বিমানবন্দর

বাংলাদেশে ভিসা নিয়ে না আসায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মঙ্গলবার দুই বিদেশিকে পুশব্যাক করে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

সোমবার যুক্তরাষ্ট্র ও আইভরিকোস্টের এ দুই নাগরিক শাহজালাল বিমানবন্দরে আসেন। তাদের ফেরত পাঠানো হয়।

মঙ্গলবার বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এএইচএম তৌহিদ-উল-আহসান বলেন, ৩১ মার্চ পর্যন্ত অন-অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধ করেছে সরকার। এখন বাংলাদেশে কাউকে আসতে হলে আগেই ভিসা নিয়ে আসতে হবে। ওই দুই নাগরিক সোমবার ভিসা ছাড়াই বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। তাদের কাছে কোনো ভিসা ছিল না। এ জন্য মঙ্গলবার তাদের নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে। পরিচালক তৌহিদ বলেন, ১৬ তারিখ দুপুর ১২টার পর থেকে যুক্তরাজ্য ছাড়া ইউরোপের কোনো যাত্রী বাংলাদেশে আসতে পারবে না। সব দেশের জন্য অন-অ্যারাইভাল ভিসা বাতিল করা হয়েছে। করোনা আক্রান্ত কোনো দেশ থেকে বাংলাদেশি কেউ এলে সেলফ (নিজ উদ্যোগে) কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। আমরা এসব বিষয় বাস্তবায়ন করেছি। এসব বিষয়ে সব বিমানবন্দর ও এয়ারলাইনসকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বিমানবন্দরের পরিচালক বলেন, ১৬ তারিখ দুপুর ১২টার পর থেকে যুক্তরাজ্য ছাড়া ইউরোপের কোনো যাত্রী বাংলাদেশে আসায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। ৩১ মার্চ পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে। করোনা আক্রান্ত কোনো দেশ থেকে বাংলাদেশি কেউ এলে সেলফ কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। আমরা এসব বিষয় বাস্তবায়ন করেছি। এসব বিষয়ে সব বিমানবন্দর ও এয়ারলাইনসকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

নিষেধাজ্ঞার পরও সোমবার রাতে কাতারের ফ্লাইট দেশে অবতরণের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা ফ্লাইটটিকে কঠোরভাবে বলে দিয়েছিলাম যে তারা ইউরোপের যাত্রী নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবে না। এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলকেও বলে দিয়েছিলাম ফ্লাইটটিকে অবতরণের অনুমতি না দিয়ে কাতারে ফিরিয়ে দিতে। তবে পরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের জানানো হলো যে, মানবিক কারণে তারা ফ্লাইটটিকে বাংলাদেশে আসার অনুমতি দিয়েছে।

চীনের উহান শহরে প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাস বিশ্বের ১৫৮ দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে বিশ্বব্যাপী ৭ হাজার ১৬৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিভিন্ন দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৮২ হাজার ৫৫০। অপরদিকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭৯ হাজার ৮৮১ জন।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: