মধ্যবয়সী নারী নিয়ে ছেলেদের যে সব ভুল ধারণা,ছেলেদের পড়া উচিত

মেনোপজ”, অর্থাৎ নারীদের মাসিক ঋতুচক্র বন্ধ হয়ে যাওয়া। পিরিয়ডকে নারীদেহে যৌবনের লক্ষণ হিসাবেই ধরে নেয়া যায় এবং সেই হিসাবে পিরিয়ড বন্ধ হয়ে যাওয়ার অর্থ নারী দেহের বার্ধক্য। বিষয়টি পুরোপুরি সত্য নয়। পিরিয়ড বন্ধ হয়ে যাওয়া মানে নারী এখন আর সন্তান উৎপাদনে সক্ষম নন, কিন্তু ব্যাপারটি আসলে বার্ধক্যও নয়। মেনপোজের পর নারীদেহে কিছু পরিবর্তন আসে, বেশ একটা লম্বা সময় ধরে কিছু শারীরিক সমস্যার মাঝ দিয়ে অতিক্রম করতে হয়।

ফলে অধিকাংশ নারীর ধারণা হয় যে ফুরিয়ে গেছে তাঁর যৌন জীবনে, এখন আর তিনি যৌনতার স্বাদ নিতে পারবেন না কিংবা অরগাজম অনুভব করতে পারবেন না। সঙ্গীর চোখে আকর্ষণ ফুরিয়ে গেছেন বা তিনি দেখতে খারাপ হয়ে গেছে এমন ধারণাও দেখা যায় অনেকের মাঝেই। চলুন, জেনে নিই এমনই কিছু ভুল ধারণার প্রকৃত সত্য।

১) ভুল ধারণা- “যৌনাঙ্গ কুঁচকে যায় ও সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায়”
প্রায় সব নারীরই এটা মনে হয় যে মেনপোজ হবার সাথে সাথেই তাঁর যোনি কুঁচকে যাবে, যোনিতে বয়সের ছাপ এসে পড়বে। ফলে তাঁরা আর যৌন মিলনে উৎসাহী হয়ে ওঠেন না। তবেঁ প্রকৃত সত্য এটাই যে মেনোপজ হবার সাথে সাথেই আপনার যোনিতে কোন পরিবর্তন হয় না। বরং পরিবর্তনতা আসে আস্তে আস্তে।

এসময়ে যোনিতে রক্ত সঞ্চালন কমে যায়, ফলে আস্তে আস্তে যোনি হারাতে থাকে তাঁর সৌন্দর্য ও চামড়ায় চলে আসে ঢিলে ভাব। আর এই সমস্যা থেকে মুক্তির উপায় কী? নিয়মিত যৌন মিলন! হ্যাঁ, যদি নিজের যৌনাঙ্গ সুন্দর ও আগের মতই রাখতে চান, তাহলে যৌন মিলনকে না বলবেন না। তে যোনিতে রক্ত প্রবাহ বাড়ে ও যোনির তারুণ্য-সৌন্দর্য অটুট থাকে।

২) “ভুল ধারণা”- মেনপোজের যৌনতা কষ্টকর
মেনোপজে যৌনতা কষ্টকর বা আপনি খুব ব্যথা পাবেন, এটিও ভ্রান্ত ধারণা। এই ধারণা তৈরি হয় যোনির শুষ্কতায়। মেনোপজের পর যা হতে পারে সেটা হলো আপনার যোনি শুকিয়ে যায় বা পর্যাপ্ত তরল উপস্থিত হয় না যৌন মিলনকে সহজ করার জন্য। যদিও আপনি হয়তো শারীরিক উত্তেজনা অনুভব করছেন। তবেঁ এই ব্যাপারটি সমাধান আছে, ব্যবহার করতে হবে লুব্রিকেনট। যৌন মিলনকে সহজ ও আনন্দময় করতে অনেকেই এটা ব্যবহার করেন। জেল বেসড লুব্রিকেনটের বদলে ওয়াটার বেসড ব্যবহার করা ভালো। স্বাভাবিক যৌন জীবনকেও এই জিনিসটি আনন্দময় করে তুলতে পারে।

৩) “ভুল ধারণা”- এখন যৌনতায় ঝুঁকি নেই
মেনোপজের পর সন্তান ধারনের ঝুঁকি নেই, এই কথা সত্য। কিন্তু এটা ভাবার কোন কারণ নেই যে অন্য সব ঝুঁকি ফুরিয়ে গেলো।মেনোপজ হোক আর যাই হোক, এইডস থেকে শুরু করে অন্য যে কোন যৌন রোগ সংক্রমণের ঝুঁকি থেকেই যায়। আর থাকবেও। তাই অরক্ষিত যৌনতাকে না বলতেই হবে।

৪) “ভুল ধারণা”- যৌন চাহিদা কমে যায়
মেনোপজের পর যৌন চাহিদা কমে যায়, এটা আরও একটি ভুল ধারণা। মেনোপজের পর একটা শারীরিক-মানসিক শোকের ভেতর দিয়ে নারি সময় অতিবাহিত হন। এমন সময় তাঁর মুড একেবারেই বদলে যায়। ফলে সাময়িক একটা অনীহা দেখা দিতে পারে যৌনতার প্রতি। অনেকের যৌনতার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেললেও অনেকেরই আবার আগ্রহ বেড়ে যায় বহুগুণে, যৌন মিলনে প্রবল উৎসাহী হয়ে ওঠেন তাঁরা। তাই মেনোপজ মানেই যৌন আগ্রহ শেষ, এমন ভাবার কারণ নেই। পুরোটাই মনের ব্যাপার।

৫) “ভুল ধারণা”- এখন আর সঙ্গীর চোখে আপনি আকর্ষণীয় নন
মেনো”পজের পর রাতারাতি আপনার শরীরে কোন পরিবর্তন হয় না। আজ মেনোপজ হলো, কাল থেকেই আপনি বুড়ি বা আকর্ষণীয় নন, এমন ভাবার কোনই কারণ নেই। শরীরে পরিবর্তন হতে শুরু করে খুবই ধীরে ধীরে। আর এই সময়ে যদি আপনি বেছে নেন সঠিক ডায়েট, রূপচর্চা ও সঠিক ব্যায়াম, কখনোই নষ্ট হবে না আপনার সৌন্দর্য।

৬) “ভুল ধারণা”- কখনোই আর অরগাজম উপভোগ করতে পারবেন না আপনি
এটাই একটি ভুল ধারণা। হ্যাঁ, মেনোপজের আগে হয়তো এক রাতে একাধিকবার অরগাজম উপভোগ করতে পারতেন আপনি। তবে মেনোপজের পর সেটা হবে না এবং অরগাজম পেতে একটু হয়তো বেশি চেষ্টা করতে হবে আপনার। তবে অরগাজম হবে না, এটা একেবারেই ভুল ধারণা। ভালো লুব্রিকেনট ও সঠিক পজিশনে যৌন মিলন চমৎকার অরগাজম জেনে দেবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.