ব্যবসায়িক নয়, দেশের স্বার্থে গার্মেন্টস খোলা হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

ব্যবসায়িক নয়, দেশের স্বার্থে গার্মেন্টস খোলা হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

ব্যবসায়িক স্বার্থে নয় বরং দেশের স্বার্থ গার্মেন্টস খোলা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ।

সোমবার (২ আগস্ট) তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, গার্মেন্টস মালিকরা বলেছিলেন তারা ঢাকার আশেপাশের শ্রমিকদের নিয়েই আপাতত কাজ শুরু করবেন। কিন্তু কোনো কোনো গার্মেন্টস মালিক তা করেননি। আমি মনে করি এক্ষেত্রে গার্মেন্টস মালিকদের আরও সচেতন হওয়া প্রয়োজন ছিল।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমি সবাইকে দোষ দিব না। কিন্তু যারা শ্রমিকদের কাছে বার্তা পাঠিয়েছেন যে কাজে যোগ দিতেই হবে সেই বার্তা পাঠানোর ক্ষেত্রে একটু ভুল ছিল।

তিনি বলেন, গার্মেন্টস মালিকরা প্রথম থেকেই দাবি জানিয়েছিল, ১ আগস্ট থেকে গার্মেন্টস খুলে দেওয়ার জন্য। সরকার সব দিক বিবেচনায় ৫ আগস্ট পর্যন্ত লকডাউন দিয়েছে। সরকার এই ঘোষণা দেয়নি যে এটি কখনও শিথিল করা হবে না? এক্ষেত্রে গার্মেন্টস মালিকরা বলেছিলেন ঢাকার আশেপাশে শ্রমিকদের নিয়ে তাদের নিয়েই কাজ শুরু করবেন। কিন্তু এ ক্ষেত্রে কোন কোন গার্মেন্টস মালিক সেটার ব্যত্যয় ঘটিয়েছেন।

ড. হাসান মাহমুদ বলেন, জীবন এবং জীবিকা দুটোর মধ্যে সমন্বয় ঘটাতে হয়। ভারতের অবস্থা দেখুন লকডাউন দিয়ে মাসের পর মাস বন্ধ থাকার পর জিডিপির প্রবৃদ্ধি -১০ ছিল গত অর্থবছরে। আমাদের দেশে জীবন এবং জীবিকার মধ্যে সমন্বয় ঘটিয়ে প্রধানমন্ত্রী সব সিদ্ধান্ত নেওয়ার প্রেক্ষিতে গত অর্থবছরে আমাদের জিডিপির প্রবৃদ্ধি ছিল ৬ দশমিক ১ শতাংশ। সেটি আমরা সফল ভাবেই করেছি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের অর্থনীতি অনেকটাই গার্মেন্টসের ওপর নির্ভরশীল। রফতানি আয়ের ৮০ ভাগ বা তার বেশি গার্মেন্টস থেকেই আসে। গার্মেন্টসটা অত্যন্ত সেনসিটিভ খাত, সেখানে যদি এক সপ্তাহ ডেলিভারি দিতে না পারে বা এক সপ্তাহ দেরি হয় তাহলে কার্যাদেশ বন্ধ হয়ে যায়, দেশ ঝুঁকির মধ্যে পড়ে, সেই বিষয়টাও দেখতে হবে। সুতরাং এটি ব্যবসায়িক স্বার্থে নয়, পুরো বিষয়টা দেশের স্বার্থে করা হয়েছে।

শেয়ার করুন