ব্যক্তি শামীম ওসমানের প্রতি আমার কঠোর মন্তব্য নেই: নানক

ব্যক্তি শামীম ওসমানের প্রতি আমার কঠোর কোনো মন্তব্য নেই বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর কবির নানক।

শনিবার (৮ জানুয়ারি) একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এই মন্তব্য করেন তিনি।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, আমি একটি রাজনৈতিক দল করি। সেই দলের নিয়ম-নীতিমালা রয়েছে। সেই নিয়ম-নীতিমালার আলোকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৬ জানুয়ারী নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন কথা বার্তা জনসম্মুখে আসছে। সেটি দুঃখজনক।

বর্তমান সময়ে ভোট ভোটারদের কাছে, ভোটররাই নির্ধারণ করবেন কে মেয়র হবে, কে নেতৃত্ব দিবে। আমার কথাটি ছিলো যে নৌকা নিয়ে আমি এমপি হবো, আবার নৌকার বিরোধীতা করবো।

এটা বিশ্বাসঘাতকা। আমি এখনো সেই জায়গাটাতে আছি। দল যখন করবো দলের সিদ্ধান্ত মানতে হবে। নেত্রীর সিদ্ধান্ত মানতে হবে।

আওয়ামী লীগের এই প্রেসিডিয়াম সদস্য বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের পরিবেশ খুবই সুন্দর রয়েছে। কোথাও কোন বিশৃঙ্খলার খবর আমরা পাইনি। নির্বাচন যতো ঘনিয়ে আসছে তত বাকযুদ্ধ চলছে।

তবে নির্বাচনী পরিবেশ ভালো আছে। আমি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রতিদিনই নারায়ণগঞ্জে ছুটাছুটি করছি, তৃনমূল পর্যায়ে যাচ্ছি।

নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন যখন আসে তখন মাঠ খুব গরম হয়ে যায়। আমি মনে করি সব ষড়যন্ত্র সব কিছুর সুরাহা হয়ে যাবে ১৬ তারিখ। এখানে এখন পর্যন্ত সুন্দর পরিবেশ রয়েছে। এখনো কোন বিশৃঙ্খলা নেই। চাপা উত্তেজনা বাকযুদ্ধ ও শব্দ বোমার মধ্যেই সিমাবদ্ধ রয়েছে।

শামীম ওসমান সম্পর্কে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জে ফ্যাক্টর না এটি সঠিক নয়। শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে অবশ্যই ফ্রাক্টর। ছাত্র রাজনীতি থেকে অনেক লড়াই সংগ্রাম করে এ পর্যায়ে এসেছেন।

এজন্যই শামীম ওসমানকে নেত্রী নৌকা প্রতিক দিয়েছেন এবং সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। ১৬ তারিখের নির্বাচনের পরই আমরা চুলচেড়া বিশ্লেষন করবো। কার কি অবস্থান।

শামীম ওসমান সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন কিনা। আমরা নির্বাচনের পর রিপোর্ট তৈরী করে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার কাছে দিবো। এখন আর সেই দিন নাই যে কারও কথায় মানুষ ভোট দেবে, যার ভোট সে দিবে।