বিয়ের দাবি নিয়ে স্বামী ও দুই সন্তানের মায়া ত্যাগ প্রেমিকের বাড়ি অনশন

রংপুরের তারাগঞ্জে স্বামী ও দুই সন্তানের মায়া ত্যাগ করে বিয়ের দাবি নিয়ে গত দুইদিন ধরে এক যুবকের বাড়িতে অনশন করছেন বিউটি বেগম নামের এক নারী। দীর্ঘদিনের পরকীয়া সম্পর্কের পর প্রেমিক পিয়ারুলকে বিয়ের দাবিতে তিনি এ অনশন করছেন। তবে বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চলছে আলোচনা সমালোচনা।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি ইউনিয়নের খারুভাজ গ্রামের শাহজালাল মিয়া সঙ্গে প্রায় ২৫ বছর থেকে সংসার করে আসছেন বিউটি বেগম (৩৭)। সংসার জীবনে বড় মেয়েকে বিয়ে দিয়ে ৩ বছরের এক নাতনীর মুখ দেখেছেন তিনি। এ ছাড়া ১৬ বছরের এক পুত্র সন্তানও রয়েছে ওই দম্পতির। এরই মাঝে বেশ কয়েক বছর ধরে বিউটি বেগমের পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন একই এলাকার জসিমুদ্দিনের ছেলে পেয়ারুল ইসলাম (৩০)। তাদের পরকীয়া সম্পর্কের বিষয়টি উভয় পরিবারের লোকজনসহ এলাকায় জানাজানি হলে বেশ কয়েকবার স্থানীয়ভাবে সালিস বৈঠকের মাধ্যমে সর্তক করা হয় তাদের। এরপরও সম্পর্ক অব্যাহত রাখেন তারা।

শুক্রবার সন্ধ্যায় স্বামী ও সন্তানদের ছেড়ে বিউটি বেগম প্রেমিক পেয়ারুলের থাকার ঘরে গিয়ে ঢুকে পড়েন। ঘটনাটি প্রেমিক পেয়ারুল জানতে পেরে গাঁ ঢাকা দেয়। এতে করে ওই এলাকায় নানা আলোচনা শুরু হয় যুবক পেয়ারুল ও দুই সন্তানের জননী প্রেমিকাকে নিয়ে।

আজ রবিবার দুপুরে অনশনরত বিউটি বেগমের সাথে কথা হলে তিনি অভিযোগ করে বলেন, স্বামী ও সন্তান ছাড়াও লোক-লজ্জা উপেক্ষা করে পেয়ারুলের ভালবাসায় তার বাড়িতে চলে এসেছি। সে আমাকে বিয়ে করে সংসার করবে এমন আশ্বাস দিয়ে আসছে। সেই আশ্বাসের ভিত্তিতেই আমি তার বাড়িতে এসেছি। এখন সে গ্রহণ না করলে আমার মরণ ছাড়া কোন উপায় থাকবে না।

প্রেমিক পেয়ারুলের সাথে বেশ কয়েকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে বিউটি বেগমের স্বামী শাহজালাল মিয়া কোন মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

এ ব্যাপারে ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নজরুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, দুই পরিবারের মধ্যে ঘটনাটি নিয়ে কথা হচ্ছে। এর একটা সমাধান বের করা হবে।

শেয়ার করুন