বিধবার সাথে অনৈতিক কাজে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগে পুলিশ কর্মকর্তাকে মারধর

বিধবার সাথে অনৈতিক কাজে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগে পুলিশ কর্মকর্তাকে মারধর

পটুয়াখালীর বাউফলে পরকীয়ার সম্পর্কের জেরে অনৈতিক কাজে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগে পুলিশের এক সহকারী উপপরিদর্শককে (এএসআই) আটক করে মারধর করেছেন স্থানীয়রা।

শুক্রবার রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নে ওই ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে পুলিশ। আজ শনিবার তাকে বদলি করে জেলা পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য বাউফল থানার এএসআই মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে এক বিধবার পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। শুক্রবার রাতে ওই নারীর সঙ্গে দেখা করতে যান রফিকুল। স্থানীয়রা টের পেয়ে রাত সাড়ে নয়টার দিকে ওই নারীর ঘর থেকে বের হওয়ার সময় রফিকুলকে ধরে ফেলেন এবং মারধর করে একটি ঘর আটকে রাখেন।

ঘটনার সময় ওই ব্যক্তি নিজেকে পুলিশ কর্মকর্তা বলে পরিচয় দেন। উপস্থিত লোকজনের পা ধরে ক্ষমা চান। একপর্যায়ে মুঠোফোনে তিনি স্থানীয় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী এক নেতাকে ডাকেন। ওই আওয়ামী লীগ নেতার নির্দেশে ছাত্রলীগের তিন নেতা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। তারা সবাইকে বের করে দিয়ে ওই পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলেন। এরপর রফাদফা শেষে তারা পুলিশ কর্মকর্তার পক্ষে অবস্থান নেন। এরই মধ্যে বাউফল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ওই কর্মকর্তাকে উদ্ধার করেন।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল মামুন বলেন, ‘রফিকুলকে বদলি করে জেলা পুলিশ লাইন্সে পাঠানো হয়েছে।’ তবে অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তার ব্যাপারে আর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

শেয়ার করুন