বাড়ি বাড়ি গিয়ে নারীর গোসলের ছবি তুলে ভয়ংকর রূপ নেন কাঠমিস্ত্রি

বাড়ি বাড়ি গিয়ে নারীর গোসলের ছবি তুলে ভয়ংকর রূপ নেন কাঠমিস্ত্রি

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় এক কাঠমিস্ত্রিকে আটক করেছে পুলিশ। এক নারীর করা মামলায় বুধবার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

আটকের নাম রফিকুল ইসলাম। তিনি উপজেলার ভাটারা ইউনিয়নের ফুলদহ গ্রামের মোসাহেব আলীর ছেলে।মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, উপজেলাসহ বিভিন্ন এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে কাঠমিস্ত্রির কাজ করেন রফিকুল। সেই সুবাদে ভুক্তভোগী নারীর বাড়িতে কাঠমিস্ত্রির কাজ করার সুযোগ পান।

এরপর ওই নারীর সঙ্গে তার পরিচয় হয়। দীর্ঘদিন বাড়িতে ঘর নির্মাণের কাজ করায় প্রয়োজনে মোবাইল ফোনেও কথাবার্তা বলতেন তারা দুজন। কিছুদিন পর রফিকুল কৌশলে গোসল করার সময় ওই নারীর কিছু ছবি তোলেন। সেই ছবিগুলো ন;গ্ন ছবির সঙ্গে এডিটিং করে ইমোতে ওই নারীর কাছে পাঠান।

একপর্যায়ে তাকে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে মোটা অংকের টাকা দাবি করেন রফিকুল। এতে রাজি না হওয়ায় ফুঁ;সে ওঠেন তিনি। একপর্যায়ে ওই নারীর ছবি বি;কৃ;ত করে আত্মীয়স্বজন ও গ্রামের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে দেন। বিষয়টি জানাজানি হলে মঙ্গলবার রাতে থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন ভুক্তভোগী নারী। পরে অভিযান চালিয়ে রাতেই ভাটারা ইউনিয়নের গাবতলী বাজার থেকে রফিকুলকে আটক করে সরিষাবাড়ী থানা পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আরিফুল ইসলাম জানান, ভুক্তভোগী নারীর ছবি বি;কৃ;ত করে হেন্ডবিল আকারে পোস্টারিং করে বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে দেন রফিকুল। এ ঘটনায় থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন ওই নারী। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। বুধবার সকালে রফিকুলকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার করুন