বন্যপ্রাণীর সঙ্গে অবৈধ কার্যকলাপে মামলা, ৭ বছর কারাদণ্ড হতে পারে শ্রাবন্তীর

টালিউড অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি যেন বিতর্কের আরেক নাম। এবার বন্যপ্রাণির গলায় অবৈধভাবে শিকল বেঁধে পড়লেন আইনের গ্যাঁড়াকলে। হয়েছে মামলাও। এখন অভিযোগটি প্রমাণিত হলে জনপ্রিয় এই নায়িকার ৭ বছরের কারাদণ্ড পর্যন্ত হতে পারে। খবরটি ভারতের একাধিক গণমাধ্যম নিশ্চিত করেছে।

গত ১৫ জানুয়ারি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন শ্রাবন্তী। যেখানে দেখা যায়, একটি বেজিকে হাতে নিয়ে রেখেছেন অভিনেত্রী। ঐ বেজির গলায় ছিল বকলস এবং বাঁধা ছিল মোটা চেইনের সঙ্গে। ছবিটির ক্যাপশনে শ্রাবন্তী লিখেছিলেন, ‘আচমকা ছোট্ট বন্ধুটীর সঙ্গে দেখা হলো’।

ঐ সময়েই ছবিটি নিয়ে তোপের মুখে পড়েছিলেন শ্রাবন্তী। এবার পড়লেন আইনের গ্যাঁড়াকলে। তার বিরুদ্ধে বণ্যপ্রাণী সুরক্ষা আইন ১৯৭২-এর ৯, ১১, ৩৯, ৪৮এ, ৪৯, ৪৯ ধারায় মামলা হয়েছে। শিগগিরই কলকাতার সল্টলেকের ওয়াইল্ডলাইফ ক্রাইম কন্ট্রোল সেল এবং ডাটা ম্যানেজমেন্ট ইউনিটের সামনে হাজিরা দিতে হবে অভিনেত্রীকে।

বিষয়টি নিয়ে এখনই কোনো মন্তব্য করতে নারাজ শ্রাবন্তী। তার আইনজীবী এস কে হাবিবউদ্দিন জানান, সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করে তারা আগে পুরো বিষয়টি সম্পর্কে ভালোভাবে জানবেন। এরপরই পরবর্তী পদক্ষেপ নির্ধারণ করা হবে।

এ বিষয়ে ভারতের বনদফতরের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বলেন, বন্যপ্রাণীকে এভাবে বন্দি করে রাখা শুধু যে অপরাধ তা নয়, শ্রাবন্তীর মতো একজন তারকা যদি এমন কাজ করেন তা দেখে অনেকে প্রভাবিত হতে পারেন। অভিনেত্রীর উচিত বনদফতরের সঙ্গে সহযোগিতা করা এবং বনপ্রাণ সংরক্ষণের এই লড়াইয়ে আমাদের সাহায্য করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.