প্রধানমন্ত্রী খাঁটি মু’সলমান, তিনি ঈমানি দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন: স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী

ভাস্কর্য ইস্যুতে হেফাজত নেতাদের প্রস্তাবনার বি’ষয়ে স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জমান খান কামাল বলেছেন, আমরা সংবিধানের বাইরে কিছু করবো না।

আবার আমরা কোনো ধর্মকে অবমাননা করবো না। প্রধানমন্ত্রী একজন খাঁটি মু’সলমান এবং তার ও’পর যে ঈমানি দায়িত্ব রয়েছে তা তিনি পালন করে যাচ্ছেন।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে স’চিবালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

গতকাল গভীর রাতে দেশের কওমি মাদ্রাসাগুলোর শিক্ষা বোর্ড বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার (বেফাক) সভাপতি মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে দেশের ১২ জন শীর্ষস্থানীয় হেফাজত নেতা স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রীর ধানমন্ডির বাসভবনে মতবিনিময় করেন। সংবাদ সম্মেলনে সে বি’ষয়ে কথা বলেন স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, গত ৫ ডিসেম্বর দেশের শীর্ষস্থানীয় হেফাজত নেতারা বেফাক সভাপতি মাহমুদুল হাসানের ডাকে একত্রিত হয়েছিলেন। তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে

একটি পত্র দিয়েছেন। সেখানে পাঁচ’টি প্রস্তবনা আছে। গতকাল সে বি’ষয়ে ফলপ্রসূ আলাপ হয়েছে। এখনো কোনো সি’দ্ধান্ত হয়নি। আরও আলাপ হবে,

এর মাধ্যমে আমরা সমস্ত সমস্যার সমাধান করতে পারবো। প্রধানমন্ত্রী একজন খাঁটি মু’সলমান এবং তার ও’পর যে ঈমানি দায়িত্ব রয়েছে তা তিনি পালন করে যাচ্ছেন।

তারা কি ভাস্কর্যবি’রোধী অবস্থান সরে এসেছে?— সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা তাদের দেওয়া প্রস্তাবনা নিয়ে আলাপ

করেছি। আলাপ-আলোচনাগুলো শেষে ঐক্যমতে পৌঁছতে পারবো বলেই আমি বিশ্বাস করি। আমরা ঐক্যমতে পৌঁছেছি, কেউ যেন রাস্তায় নেমে ভা’ঙচুর

না করে। আইন-শৃঙ্খলা ভে’ঙে অরাজক পরিস্থিতি তৈরি না করে। ফেসবুকে উ’ত্তেজনা ছাড়ানোর যে প্রয়াস চলছে তার বি’রুদ্ধে তারাও অবস্থান নেবেন। তারা বলেছেন, এগুলো নি’য়ন্ত্রণ করবেন।

কুষ্টিয়ায় ভাস্কর্য ভা’ঙচুরের ঘ’টনায় মা’মলার বি’ষয়ে তাদের বক্তব্য জানতে চাইলে স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কেউ যেন রাস্তায় নেমে ভা’ঙচুর না করে।

অরাজক পরিস্থিতি তৈরি না করে। কেউ যেন স’রকারবি’রোধী আন্দোলন না করে সেই আহ্বান তারা জানাবেন বলে গেছেন। তারা বলেছেন, পাঁচ’টি প্রস্তাবনা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে তারা শেষ করতে চান।

যে ইস্যু নিয়ে আলোচনা তা সংবিধান পরিপন্থি। এ নিয়ে সুস্পষ্ট আইন আছে। যেখানে আইন কথা বলবে সেখানে স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রীর বাসায় তারা আলোচনা করছে।

স’রকার নতজানু অবস্থানে আছে কি না?— সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রশ্নই আসে না। স’রকার কখনো নতজানু নীতিতে বিশ্বাস করে না।

তারা যেসব প্রস্তাবনা দিয়েছে, আমরা বলছি আলোচনা চলবে। তারা সুন্দর কথা বলেছেন। ফেসবুকে অ’পপ্রচারের বি’রুদ্ধে আমাদের সজাগ হতে বলেছেন।

কোনো প্রকার নৈরাজ্য যেন সৃষ্টি না হয় সে ব্যাপারে তারা ঐক্যবদ্ধ। কোনো রকম আন্দোলন তারা করবেন না। সংবিধানবি’রোধী হলে আমাদের মানার কোনো সুযোগ নেই। আমরা সংবিধানের বাইরে যাব না, আমরা ধর্মীয় অনুভূতিতে আ’ঘাত দিতে চাই না।

যারা জাতির পিতার ভাস্কর্য ভে’ঙেছে, তাদের স’ঙ্গে আলোচনা করা যায় কি না?— প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান খান বলেন, নতজানু রাজনীতি কখনো আওয়ামী লীগ করে না।

আমাদের স’রকার সব কিছু স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েই করে। সংবিধানের বাইরে আমরা কোনো কিছু করবো না। তার মানে এই নয় কোনো ধর্মকে আমরা অবমাননা করবো। ধর্মীয় বিধান মেনেই আমরা চলছি এবং চলবো।

এটা তারাও মেনে গেছেন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী একজন ধর্মপ্রা’ণ মু’সলমান। তিনি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন। তাহাজ্জুদের নামাজও আদায় করেন। তারাই মনে করেন তাদের প্রস্তাবনা আলোচনার মাধ্যমে শেষ হবে।

তাদের দাবি স্পষ্ট ছিল ভাস্কর্য নির্মাণ করা যাবে না। সেই বি’ষয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতি। এটা যদি তাদের দাবি হয়, সে বি’ষয়ে আলোচনা হচ্ছে।

তাহলে ভাস্কর্য নির্মাণ হবে কি, হবে না তা নিয়ে দোটানায় আছে স’রকার— জানতে চাইলে স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা সংবিধানের বাইরে যাব না। আমরা ধর্মীয় অনুভূতিতেও আ’ঘাত দেবো না।

ভাস্কর্য যেখানে যেটা আছে তা থাকবে কি থাকবে না সব বি’ষয় নিয়েই আলোচনা করছি। আমরা বলছি, ভাস্কর্য কেন করা হয়? এটা মূর্তি নয়। এটা পূজা করা হয় না। নতুন প্রজ’ন্মকে বঙ্গবন্ধু কে ছিলেন, তার অবদান চির স্মরণীয় করে রাখার জন্য, হৃদয়ে ধারণ করার জন্য আমরা বঙ্গবন্ধুকে ধরে রাখতে চাচ্ছি।

সেটা আমরা কথা বলছি, তারা ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে কথা বলেছেন। এটাই আলোচনা মাধ্যমে সুন্দর সমাধানে আসবো বলে বিশ্বাস করি।

ভাস্কর্য থাকবে না এটা তারা বলেনি। তারা বলছে, যে জায়গায় মূ’ল ভাস্কর্য যেখানে আছে, তার পাশে মুজিব মিনার করা যায় কি না। সেটা আলোচনার মাধ্যমে সি’দ্ধান্ত হবে। আমরা সব সময় আলোচনায় বিশ্বাস করি।

ভাস্কর্য সরে যাবে, অন্য কিছু হবে এ রকম কোনো সি’দ্ধান্ত হয়নি। ভাস্কর্য নির্মাণকাজ চলমান রয়েছে। তারা প্রধানমন্ত্রীর স’ঙ্গে দেখা করতে চেয়েছেন। আমরা প্রস্তাব দেবো, তিনি রাজি হলে দেখা হবে— বলেন স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: