ঘরের শোকেস ঘরের শোভা

বসার বা খাবার ঘর ছাড়াও শোকেস শোবার ঘর, প্যাসেজ, এমনকি রান্না ঘরেও জায়গা করে নিয়েছে। দেয়ালজুড়ে ইচ্ছামতো ডিজাইন করা যায়। পাকাপাকিভাবে তৈরি এসব শোকেসকে ডিজাইনাররা বলেন ‘ওয়াল মাউন্টেড ডিসপ্লে শেলফ’। তবে ভাড়া বাসায় ও বৈচিত্র্যময় অস্থায়ী শোকেস তৈরি করে নিতে পারেন দেয়াল শোকেস ও কর্নার শোকেস দুটিই রাখতে পারেন বসার ঘরে।

বাজারে বিভিন্ন ধরনের কর্নার শোকেস পাওয়া যায়। যে কর্নারে রাখতে চান, সে অনুযায়ী শোকেসের আকার বেছে নিন। ব্যতিক্রম চাইলে কর্নার বা দেয়াল শোকেস বাদ দিন। ঘরের আয়তন অনুযায়ী দেয়ালের মাঝামাঝি অংশে গোলাকার, আয়তাকার বা জিগজ্যাগ শেলফ তৈরি করুন। শেলফের তাকগুলো বিভিন্ন আকৃতির হবে। কোনোটা কাচ দেওয়া, কোনোটা আবার কাচ ছাড়া। এবার বিভিন্ন ধরনের শোপিস, পুতুল, মূর্তি ও ফুলদানি দিয়ে সাজিয়ে নিন।

গান শোনার ব্যবস্থা চাইলে দেয়াল ঘেঁষে ফ্লোর শেলফ করে সেখানে গানের সরঞ্জাম রাখুন। ব্যক্তিগত পদক, পুরস্কার বা সম্মাননা থাকলে সেগুলো শেলফের টপে সাজান। সঙ্গে দু-একটি শোপিস। গর্জিয়াস লুক আনতে শোকেসের ওপর স্পটলাইট এমনভাবে দিন, যেন শোপিসের ওপর আলো প্রতিফলিত হয়।

খাবার ঘরের শোকেস রাখুন রান্নাঘর থেকে খাবার ঘরে প্রবেশ পথের এক পাশে। প্রথমে মেঝে থেকে আড়াই ফিট উচ্চতার কাউন্টার কেবিনেট তৈরি করুন। কেবিনেটের ওপর থাকবে মার্বেল টপ। আরো আড়াই ফুট জায়গা খালি রেখে ইচ্ছামতো ডিজাইনের শেলফ বানিয়ে নিন। শোকেসের প্রস্থ দেয়ালের আয়তন অনুযায়ী কমবেশি হতে পারে। খাবার ঘরের শোকেসে ক্রোকারিজের পাশাপাশি কিছু পিতল, সিরামিকের শোপিস বা রুপার তৈজসপত্রের শোপিস রাখতে পারেন।

আলমারি, ওয়ারড্রপ আর ড্রেসিং ইউনিটের সঙ্গে শোবার ঘরের একটা অংশে শোকেস তৈরি করতে পারেন। দেয়াল কেবিনেটের মধ্যে পছন্দমতো আকারের খোলা শেলফ বানিয়ে শোকেস হিসেবে ব্যবহার করুন। আপনজনের সঙ্গে তোলা ছবির বাঁধানো ফ্রেম, পছন্দের কিছু বই, সিডি কিংবা নানা রকম শোপিসের সংগ্রহ এখানে রাখুন। আবার খাট-লাগোয়া দেয়ালের ওপরের অংশে বসার ঘরের মতো ছোট আকৃতির শোকেস বানিয়ে নিতে পারেন।

করিডরে গৎবাঁধা দেয়াল টানা শোকেস না রেখে একটু ব্যতিক্রমী কিছু করুন। করিডরের দেয়ালজুড়ে কিছু কিছু জায়গা বাদ রেখে তাক বানিয়ে নিন। কিছু তাক হবে খোলা, আবার কিছু কাচের পাল্লা দেওয়া। খোলা তাকে ফুলদানি, বনসাই, পুতুল বা ফটোফ্রেম রাখুন। ভঙ্গুর বা একটু দামি শোপিস রাখুন পাল্লা দেওয়া তাকে। প্যাসেজের একটি বা দুটি তাকে বইও রাখতে পারেন। বিপরীত দেয়ালে ছোট ছোট পেইন্টিং কোলাস বা গুচ্ছ আকারে সাজান।

শিশুর ঘরে দেয়ালে কেবিনেটের সঙ্গেই শোকেস জুড়ে দিন। শেলফগুলোর উচ্চতা হবে শিশুর ব্যবহার-উপযোগী। প্রস্থে এক ফুট চার ইঞ্চি। ছোট শিশু হলে শেলফে কাচ ব্যবহার না করে খোলা রাখতে পারেন।

শেয়ার করুন