পাকিস্তানের পাশে দাঁড়াল শ্রীলঙ্কা। সেপ্টেম্বরেই অনুষ্ঠিত হবে এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট।

ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেট লিগ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ, আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। আগামী সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানের হওয়ার কথা ছিল এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে সেটি এখন অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে।

অন্যদিকে অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। সেটিও এখন অনিশ্চিত। তবে সবকিছুকে পিছনে ফেলে আগামী সেপ্টেম্বরে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ আয়োজন করার চিন্তা করছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম মুম্বাই মিররের বরাত দিয়ে এমন তথ্য ছড়িয়ে পড়েছে।

চলতি বছরে আইপিএলের ১৩ তম আসর ২৯ মার্চ থেকে মাঠে গড়ানোর কথা ছিল। তবে করোনাভাইরাসের কারণে ভারত জুড়ে লকডাউন দেওয়াতে সেই পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। পরবর্তীতে ১৫ এপ্রিল থেকে শুরু করার একটি পরিকল্পনা করা হয়। তবে ভারতে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়াতে সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয় ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এই টুর্নামেন্টকে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম ‘মুম্বাই মিরর’ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে ৮ নভেম্বর পর্যন্ত আয়োজিত হবে আইপিএলের ১৩ তম আসর। কিন্তু তখন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে ক্রিকেটের বড় দুটি টুর্নামেন্ট আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট।

চলতি বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সূচি ছিল, ১৮ অক্টোবর থেকে এটি শুরু হয়ে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে। অর্থাৎ, বিসিসিআই বিশ্বকাপ হবে না ধরে নিয়ে আইপিএলের সূচি নির্ধারিত করেছে বিসিসিআই। যদিও এই সূচি এখনও নিশ্চিত নয়। এখনও বিশ্বকাপ ভাগ্যের উপর ঝুলছে আইপিএলের ভাগ্যও।

এদিকে বিশ্বকাপ ছাড়াও চলতি বছরের এশিয়া কাপও আইপিএলের সামনে প্রতিবন্ধকতা হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ সূচি অনুযায়ী সেপ্টেম্বরে আয়োজিত হওয়ার কথা এশিয়া কাপ। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি) এবং পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) কোনোভাবে চলতি বছরের এশিয়া কাপ পিছিয়ে যাক সেটি চাইছে না।

বিশেষ করে আইপিএলকে সুযোগ করে দিতে এশিয়া কাপের সময়সূচি পিছিয়ে যাক এমন প্রস্তাবে দ্বিমত রয়েছে এসএলসি ও পিসিবির। কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ছাড়া আইপিএলের জন্য এশিয়া কাপ পিছিয়ে যাবে না, এমন মতামত জানিয়ে পিসিবি’র প্রধান নির্বাহী ওয়াশিম খান বলেন, ‘এশিয়া কাপ আয়োজনের বিষয়ে আমাদের অবস্থান একদম পরিষ্কার।

এবারের এশিয়া কাপ সেপ্টেম্বরে আয়োজিত হবে। একমাত্র স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা চিন্তা করে এই টুর্নামেন্টটি আয়োজন না হতে পারে। তবে আইপিএলকে সুযোগ করে দিতে এশিয়া কাপের সূচি পিছিয়ে দেওয়া আমরা কোনো ভাবেই মানবো না।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: