পাইপ বেয়ে রক্ত, ঘরে মিলল বাবা-মা-মেয়ের মরদেহ

পাইপ বেয়ে রক্ত, ঘরে মিলল বাবা-মা-মেয়ের মরদেহ

চারদিন থেকে অভিজিৎ পরিবারের খোঁজ পাচ্ছিলেন না প্রতিবেশীরা। পরে বাড়িতে খোঁজ করতে গিয়ে দেখেন অভিজিৎদের বাড়ির দোতলা থেকে নেমে আসা পাইপ বেয়ে রক্ত গড়িয়ে পড়ছে।

বাড়িতে ঢুকে দেখেন দরজা ভেতর থেকে বন্ধ। পরে পুলিশে খবর দেন তারা। এরপর ঘরের দরজা ভেঙে উদ্ধার করা হয় অভিজিৎ, তার স্ত্রী দেবযানী এবং মেয়ে সম্রাজ্ঞীকে।

একই পরিবারের তিনজনের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনাটি হাওড়ার। সম্পর্কে তারা বাবা, মা ও মেয়ে। তারা লিলুয়া থানার বেলগাছিয়া কে রোডের বাসিন্দা। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ মনে করছে, স্ত্রী এবং মেয়েকে হাতুড়ি মেরে খুন করেছেন অভিজিৎ। তার পর গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। গত ২৮ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে আটটার দিকে এই পরিবারকে শেষবার প্রতিবেশীরা দেখতে পেয়েছিলেন বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

লিলুয়া থানার পুলিশ জানায়, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। কী কারণে এই খুন এবং আত্মহত্যা, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিজিৎই যদি স্ত্রী এবং মেয়েকে খুন করে থাকেন তা হলে তিনি কীভাবে ওই হত্যাকাণ্ড ঘটালেন তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে এলে এই তদন্তে গতি আসবে।

শেয়ার করুন