নতুন সুবিধা পাচ্ছেন সরকারি চাকরিজীবীরা, গেজেট প্রকাশ

পেনশনে যাওয়া সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ভোগান্তি কমাতে ছুটি নগদায়ন মঞ্জুরির আদেশ বিল দাখিলের তিন কর্মদিবসের মধ্যে পেনশনভোগীর ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পেনশনের অর্থ দেয়া হবে উল্লেখ করে গত ফেব্রুয়ারিতে পেনশন সহজীকরণ আদেশ, ২০২০ জারি করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। এ সুবিধা পেতে নতুন করে বেশকিছু কাগজপত্র জমা দেয়ার বিধান রাখা হয়েছে।

এসব ফরম ও কাগজপত্র অর্থ বিভাগের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাচ্ছে। গত ১৯ মার্চ স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করে অর্থ মন্ত্রণালয়। নতুন পরিপত্রটিকে গত বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) আবারো গেজেট আকারে প্রকাশ করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, ‘সরকারি কর্মচারীদের পেনশন সহজীকরণ আদেশ, ২০২০’ এর ৪.০৯ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারীর নিজের এবং তার মৃত্যুর পর তার পরিবারের পারিবারিক পেনশন প্রাপ্তির আবেদনের নিমিত্তে পেনশন আবেদন ফরম, সনদ ও কাগজপত্র সংশোধিত আকারে প্রণয়ন করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- প্রত্যাশিত শেষ বেতনপত্র (ইএলপিসি) (সংযোজনী-১), প্রাপ্তব্য পেনশনের বৈধ উত্তরাধিকারী ঘোষণাপত্র (সংযোজনী-২), উত্তরাধিকার সনদপত্র ও নন-ম্যারিজ সাটিফিকেট (সংযোজনী- ৩), পেনশন ফরম ২.১ (সংযোজনী- ৪), পারিবারিক পেনশন ফরম ২.২ (সংযোজনী- ৫), নমুনা স্বাক্ষর ও হাতের পাঁচ আঙুলের ছাপ (সংযোজনী-৬), আনুতোষিক ও অবসরভাতা উত্তোলন করার জন্য ক্ষমতা অর্পণ ও অভিভাবক মনোনয়নের প্রত্যয়নপত্র (সংযোজনী-৭) এবং না-দাবি প্রত্যয়নপত্র (সংযোজনী-৮)।

গেজেটে আরো বলা হয়- আট ধরনের ফরম, সনদ ও কাগজপত্রাদির মুদ্রণ প্রক্রিয়াধীন। বর্তমানে এসব ফরম, সনদ ও কাগজপত্র অর্থ বিভাগ (ওয়েবসাইট) থেকে ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে হবে। এ অবস্থায় ‘সরকারি কর্মচারীগণের পেনশন সহজীকরণ আদেশ, ২০২০’- এ সংযোজিত উল্লিখিত ফরম, সনদ ও কাগজপত্র পেনশন আবেদন নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে ব্যবহার করার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ করা হলো।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: