ধারের টাকায় কেনা মোটরসাইকেল আ’গুনে পুড়ে ছাই

ঢাকার একটি কলেজে ডিগ্রিতে পড়েন মোহাম্মদ বিল্লাল। থাকেন খিলগাঁওয়ের একটি মেসে। পড়াশোনা ও নিজের খরচ মেটাতে উবার-পাঠাও রাইড শেয়ার করতেন তিনি।

প্রতিদিনের মত শুক্রবার (২৬ মার্চ) সকালে মোট’রসাই’কেল নিয়ে বের হন বিল্লাল। কিন্তু সন্ধ্যায় সেই মোট’রসাই’কেল নিয়ে তার বাসায় ফেরা হয়নি। বায়তুল মোকাররম মসজিদের দক্ষিণ ফটকে চোখের সামনে আ’গুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায় উপার্জনের যানটি।

বিল্লাল জানান, দুপুর সাড়ে ১২টায় বায়তুল মোকাররম মসজিদের দক্ষিণ ফটকে মোটরসাইকেলটি রেখে নামাজে জানান তিনি। কিন্তু নামাজ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মসজিদের উত্তর ও দক্ষিণ ফ’টকে মোদিবিরোধী বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে পুলি’শ ও হেফাজতে ইসলামের নেতা’কর্মী’দের মধ্যে সং’ঘ’র্ষ শু’রু হয়।

বিকেল তিনটার দিকে উত্তর ফটক দিয়ে কো’নো’ক্রমে বের হন বিল্লাল। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম এলাকা ঘুরে দক্ষি’ণ ফ’টকে এসে দেখেন, তার মো’টর’সাই’কেলে দাউদাউ করে আ’গু’ন জ্ব’লছে।

কিন্তু তখনও দক্ষিণ ফ’টকে মুস’ল্লি’দের সঙ্গে পু’লি’শ ও ক্ষম’তা’সীন দলের নেতা’কর্মী’দের সং’ঘ’র্ষ চলছে। তাই আ’গু’ন নেভা’নো’র কোনো চে’ষ্টা’ই তিনি করতে পারেননি।

বিকেল ৪টার পর সং’র্ষ থামলে বায়তুল মো’কার’রমের দক্ষি’ণ ফ’ট’কের সামনে যান বিল্লাল। কিন্তু তত’ক্ষ’ণে পুরো মোট’রসাই’কে’লটি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। য’ন্ত্রাং’শগু’লো ক’ঙ্কা’লের মতো পড়ে রয়েছে। বি’ল্লা’লের মোট’রসাই’কেলের পাশে আরও চা’রটি মোট’রসাই’কেল আ’গু’নে পুড়তে দেখা গেছে।

প্র’ত্যক্ষ’দর্শী’রা জানান, ওই সংঘ’র্ষে’র সময় হেফা’জতে ইসলামের নেতা’কর্মী’দের দিকে অর্ধ’শতা’ধিক টিয়ারশেল নি’ক্ষেপ করে পু’লি’শ। এই টিয়ারশেলের গ্যা’স থেকে বাঁচতে মোট’রসা’ইকে’লগু’লো আ’গু’ন দিয়ে জ্বালিয়ে দেন হে’ফা’জতের নেতা’ক’র্মীরা।

মো. বিল্লাল জাগো নিউজকে বলেন, আগে তিনি একটি কো’ম্পা’নিতে চাকরি করতেন। করো’না’র কারণে সেই চাকরিটি এখন আর নেই। মোটরসাইকেল রা’ইড শেয়ার করে তিনি নিজের খরচ ও পড়া’শো’নার খরচ বহন করতেন। সাত মাস আগে ৪০ হাজার টাকা ধার করে এই মোটরসাইকেলটি কিনেছিলেন তিনি। এখন তিনি প্রধান’মন্ত্রীর কাছে তার মো’টরসাই’কে’লের ক্ষ’তিপূ’রণ দাবি করেছেন।

শেয়ার করুন