দুই কিশোরীকে অভিনয়ের প্রলোভন, অতঃপর…

দুই কিশোরীকে অভিনয়ের প্রলোভন, অতঃপর…

সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ পাবে- এই প্রলোভন দেখিয়েই দুই নাবালিকাকে পাচারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুলিশের তৎপরতায় উদ্ধার করা হলো সেই দুই নাবালিকাকে। মুম্বাইগামী চলন্ত ট্রেন থেকে পাচার হওয়ার আগেই তাদের উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আটক করা হয়েছে একজনকে। দুই কিশোরীকে অভিনয়ের প্রলোভন, বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) ভারতীয় গণমাধ্যম জি নিউজের খবরে বলা হয়,

সিনেমায় অভিনেত্রী হওয়ার জন্য এক যুবকের প্রলোভনে পা দিয়ে মুম্বাইতে যাওয়ার জন্য ট্রেনে উঠে যায় ওই দুই কিশোরী। শেষ পর্যন্ত বাদুড়িয়া থানা পুলিশ উদ্ধার করল দুই নাবালিকাকে। অভিযুক্ত যুবক আলামিন দলদারকে আটক করা হয়েছে।মুম্বাইতে থাকা আরও এক যুবকের খোঁজে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। এ ঘটনার সঙ্গে বড়সড় নারী পাচার চক্রের যোগ আছে কি না ইতোমধ্যেই তার তদন্ত শুরু হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, এক সপ্তাহ আগে বাদুড়িয়া থেকে নিখোঁজ হয় দুই নাবালিকা।

তাদের একজন মাধ্যমিক পাস করেছে, অন্যজন মাধ্যমিক পরীক্ষা দেবে। একজনের বাড়ি আটুরিয়া, অপরজন আটঘরা গ্রামের বাসিন্দা। নিখোঁজ হওয়ার একদিন পর খবর পেয়ে তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে মুম্বাইতে রঙের কাজ করা আলামিন দলদারের সঙ্গে দুই নাবালিকা হাওড়া থেকে মুম্বাইগামী ট্রেনে উঠেছে। এ ঘটনার কথা জানতে পেরে বাদুড়িয়া থানার ওসি বিলাশপুর স্টেশনের রেল পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে। তাদের চেষ্টায় চলন্ত ট্রেন থেকে ধরা পড়ে আলামিন দলদার। উদ্ধার হয় দুই নাবালিকা।

পুলিশের দাবি, মুম্বাইয়ের এক বন্ধুর সঙ্গে মিলেই আলামিন ওই দুই নাবালিকাকে মুম্বাইতে নিয়ে গিয়ে সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ করে দেওয়ার প্রলোভন দেখায়। তাতে রাজি হয়ে ওই দুই নাবালিকা বাড়ি ছাড়ে। পুলিশ জানায়, সময় মতো নিখোঁজের কথা জানতে পারায় দুই নাবালিকাকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। নয়তো একবার মুম্বাই পৌঁছে গেলে তাদের খোঁজ পাওয়া কঠিন ছিল। ধরা পড়ার পর অবশ্য প্রেমের গল্প শুনিয়েছে আলামিন দলদার। কিন্তু ঠিক কি উদ্দেশ্যে নাবালিকাদের সে মুম্বাই নিয়ে যাচ্ছিল তা পরিষ্কার নয়।

শেয়ার করুন