দিরাইয়ে অভাবের কারণে ৬ সন্তানের মায়ের আত্মহত্যা

দিরাইয়ে অভাবের কারণে ৬ সন্তানের মায়ের আত্মহত্যা

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে সাংসারিক অভাব-অনটনের জেরে রোশনা বেগম (৪০) নামে ছয় সন্তানের মা আত্মহত্যা করেছেন। সোমবার দিবাগত রাত ৩টার পর তিনি আত্মহত্যা করেন বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে দিরাই থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মঙ্গলবার লাশটি উদ্ধার করে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয় বলে পরিবারের লোকজন জানিয়েছেন।

স্বজনরা জানায়, দিনমজুর আলিফ নুরের স্ত্রী-সন্তানসহ ৮ সদস্যের সংসার। অভাব-অনটনের সংসার তাদের। অভাবি সংসারে সন্তানদের মুখে ঠিকমতো খাবার দিতে না পারায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায় দিনই ঝগড়া হতো। এ অবস্থায় প্রতিদিনের মতো সোমবার রাতে কম-বেশি যে যা পেয়েছেন খেয়ে সবাই ঘুমিয়ে পড়েন। গভীর রাতে পরিবারের সবার অগোচরে আত্মহত্যা করেন আলিফের স্ত্রী।

ভোর বেলা ঘুম থেকে উঠে পরিবারের লোকজন দেখতে পান রোশনা বেগম বসত ঘরের তীরের সাথে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এ সময় তাদের চিৎকার শুনে প্রতিবেশী ও গ্রামের লোকজন এসে থানা পুলিশে খবর দেয়।

মাছিমপুর গ্রামের বাসিন্দা জাহেদ মিয়া জানান, আলিফ নুরের পরিবারটি খুবই অভাব-অনটনে দিনাতিপাত করে। ছয় সন্তানের মধ্যে এক মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। বাকিদের নিয়ে দিনমজুরি করে সংসার চালাতে তার কষ্টের কথা প্রতিবেশী হিসেবে অনেকের জানা।

রফিনগর ইউপি চেয়ারম্যান রেজুয়ান হোসেন খান বলেন, মাছিমপুর গ্রামের ছয় সন্তানের মায়ের আত্মহত্যার খবরটি আমাকে ওয়ার্ড মেম্বর জানানোর পরই আমি দিরাই থানা পুলিশকে অবহিত করেছি।

দিরাই থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিজুর রহমান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। আত্মহত্যার প্রকৃত কারণ এখনো জানা যায়নি। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

শেয়ার করুন