তৃতীয় বিয়ে সম্পন্ন, ভক্তদের কাছে দোয়া চেয়েছেন অপূর্ব

তৃতীয় বিয়ে সম্পন্ন, ভক্তদের কাছে দোয়া চেয়েছেন অপূর্ব

নাটকের জনপ্রিয় অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব আবারও বিয়ে করলেন। আজ ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের একটি কনভেনশন সেন্টারে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা হয় বলে জানিয়েছেন অপূর্বর পরিবার।

পাত্রী যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক শাম্মা দেওয়ান। তার জন্ম ও বেড়ে ওঠা আমেরিকাতেই। তার পৈ’ত্রিক নিবাস ঢাকার লালমাটিয়া।বিয়ের পর ভ’ক্ত ও সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন অপূর্ব। এটি অপূর্বর তৃতীয় ও শা’ম্মার দ্বি’তীয় বিয়ে। স্বামীর সঙ্গে বি’চ্ছে’দের পর অপূর্বর সঙ্গে সম্প’র্ক গড়ে ওঠে শ্যাম্মার। তারপরই বিয়ের সিদ্ধা’ন্ত নিয়েছেন তারা।

এদিকে, গত বছর নাজিয়া হাসান অদিতির সাথে ভে’ঙে যায় অপূর্বর দ্বি’তীয় সংসার। ২০১০ সালের ১৯ আগস্ট অভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভাকে বিয়ে করেছিলেন অপূর্ব। এর পরের বছরের ফেব্রুয়ারিতে ডিভো’র্স হয়ে যায় তাদের। ওই বছরের ১৪ জুলাই পারিবারিকভাবে অ’দিতিকে বিয়ে করেছিলেন অপূর্ব।

Read More – কাশিমপুর কারাগারের বিউটি পার্লার থেকে মেহেদী দিয়েছে পরীমনি

জা’মিনে মু’ক্ত হয়ে কাশিমপুর কে’ন্দ্রীয় মহিলা কা’রাগার থেকে বনানীর বাসায় ফিরেছেন ঢাকাই সিনেমার আলোচিত নায়িকা পরীমনি। দীর্ঘ ২৮ দিন পর বাসায় ফিরেছেন এ নায়িকা। এদিন তাকে দেখা যায় নতুন লুকে।

গায়ে সাদা র’ঙের টি শার্ট, চোখে সানগ্লাস, ঠোঁ’টে লাল রঙের লিপিস্টিক আর সাদা কাপড়ে ঢাকা মাথায় ভিন্ন লুকে গাড়ির ভিতর থেকে উঁকি দেন হাসিমাখা পরীমনি। কা’রাগার থেকে মু’ক্তির পর আ’লোচিত নায়িকা পরীমনি হাত উঁ’চিয়ে উপস্থিত জনতাকে একটি লেখা প্রদর্শন করেন। যেখানে লেখা ছিল ‘ডোন্ট লাভ মি বি’চ’!

সূত্র থেকে জানা গেছে, কা’রাগার পরীমনির জামিনের সংবাদে আনন্দিত হয়েই হাতে মেহেদী লাগিয়েছেন এই নায়িকা। কাশিমপুর কারাগারে নারীদের প্রশিক্ষণের জন্য একটি বিউটি পার্লার রয়েছে। সেখানে রাতভর কয়েদীদের সঙ্গে গল্প করেন পরীমনি। কা’রাগারের যে বিউটি পার্লার রয়েছে নারী ক’য়েদীরা সেখান থেকে সাজার সুযোগ পান।

সেখান থেকেই হাতে মেহেদী দিয়েছেন তিনি। বাইরে থেকে কোন প্রসাধনী ব্যবহার করেননি পরীমনি। দীর্ঘ ১৯ দিনপর কা’রামু’ক্ত হন ঢাকায় সিনেমার আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি। বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কা’রাগার থেকে মু’ক্তি পান তিনি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *