‘ট্রাম্প কেমন আছেন’ সবশেষ অবস্থা জানালেন চিকিৎসকরা

করোনা আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শারীরিক উন্নতিতে চিকিৎসক দল অত্যন্ত আনন্দিত বলে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক শন কনলে।

বৃহস্পতিবার ট্রাম্প এবং ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানানো হয়। পরদিন শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্টকে ওয়াল্টার রিড মিলিটারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ট্রাম্প হাসপাতালে ভর্তির পর প্রথমবার শনিবার তার শারীরিক অবস্থা জানাতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়। সেখানে ডা. শন বলেন, সকর্তকার জন্য প্রেসিডেন্টকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বলেন, ট্রাম্পকে কৃত্তিমভাবে অক্সিজেন দেয়া হচ্ছে না। তিনি স্বাভাবিক শ্বাসপ্রশ্বাস নিতে পারছেন।

চিকিৎদলের একজন জানিয়েছেন, ট্রাম্প তাকে বলেছেন, আমার মনে হচ্ছে আজকে আমি এখান (হাসপাতাল) থেকে চলে যেতে পারবো। গেল ২৪ ঘণ্টা ধরে ট্রাম্পের শরীরে জ্বর নেই বলে জানানো হয়।

টাম্পকে অসাধারণ বহুমাত্রিক যত্ন নেয়া হচ্ছে বলে জানান চিকিৎসকরা। ‘প্রেসিডেন্টের শরীরে কোনো জটিলতা দেখা দেয় কিনা, তা নিশ্চিতে আমরা তাকে গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। শুক্রবার সকাল থেকে ট্রাম্পের শরীরে জ্বর নেই।’ জানান চিকিৎসক।

ট্রাম্প বর্তমানে স্বাভাবিকভাবে শ্বাস নিলেও তার কৃত্রিম অক্সিজেন লাগবে না-এমনটা নিশ্চিত করা হয়নি। ট্রাম্প রেমডেসিভিরের পাশাপাশি পরীক্ষাধীন চিকিৎসা গ্রহণ করছেন। যেগুলো অতীতে করোনা রোগীদের ক্ষেত্রে কার্যকর হয়েছে।

ট্রাম্প হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। কিন্তু তিনি তা ব্যবহার করেননি। জানান তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক। মহামারির শুরুতে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনকে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসায় গ্রহণের পরামর্শ দিয়েছিলেন ট্রাম্প। যা চিকিৎসা গবেষণা সমর্থন করে না।

করোনায় আক্রান্ত ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পকে ওয়াল্টার রিডি মিলিটারি হাসাপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। তিনি হোয়াইট হাউসে আইসোলেশনে আছেন। তার অবস্থা ভালো বলে জানান চিকিৎসা।

হাসপাতালে থেকেই নিজের দায়িত্ব চালিয়ে যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। ওয়াল্টার রিড হাসপাতলটি তার জন্য অফিসের মতো সাজানো হয়েছে বলেও জানান চিকিৎসকরা।

চিকিৎসরা জানান, ট্রাম্প রেমডেসিভির ওষুধ নিচ্ছেন। যার দ্বারা কম সময়ে করোনা থেকে মুক্ত হওয়া যায়। তিনি ৫ দিনের ডোজ সম্পন্ন করবেন বলেও জানানো হয়।

এদিন প্রথমবারের মতো মাস্ক এবং সাদা গাউন পরে সংবাদ সম্মেলনে আসেন ট্রাম্পের ব্যক্তিগত চিকিৎসক। বলেন, ট্রাম্প খুব তাড়াতাড়ি সেরে উঠছেন। তাতে তারা অত্যন্ত আনন্দিত।

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে ট্রাম্পের চিকিৎসক বলেন, সতর্কতার জন্য তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। বলেন, প্রেসিডেন্টের করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭২ ঘণ্টা। প্রথম এক সপ্তাহ, ৭ থেকে ১০ দিন পর্যন্ত সবচেয়ে জটিল।

ট্রাম্প করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৭২ ঘণ্টা হয়েছে চিকিৎসকের এমন বক্তব্যে বিপত্তি দেখা দিয়েছে। বিবিস নর্থ আমেরিকার এডিটর জন সোপেল টুইটে বলেন, শুক্রবার সকালে ট্রাম্প জানিয়েছেন তিনি করোনা আক্রান্ত। বড় ৩৬ ঘণ্টা হয়েছে তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

ট্রাম্পের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে তার চিকিৎসকরা সন্তুষ্ট হলেও তিনি কবে নাগাদ হাসপাতাল ছাড়তে পারবেন সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কিছু বলে পারেনি তারা।

ট্রাম্পকে গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। তার এখন জ্বর নেই। হাঁচি,কাশি-সর্দি কমে আসছে বলেও জানান চিকিৎসকরা।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: