Breaking News

চুল কাটার সময় আবারও ভাইরাল সেই খুদের নয়া কাণ্ড কারখানা

ছোট্ট অনুশ্রুতের চুল কাটার সেই ভিডিও সকলেরই মনে আছে। অনুশ্রুতের ভাইরাল হ‌ওয়া সেই প্রথম ভিডিওটিতে দেখা গিয়েছিল, সেলুনের কাকুকে সে কাটিংওয়ালা কাকু বলে সম্বোধন করছে। আর তার চুল কাটার জন্য কাটিংওয়ালা কাকুকে সে রীতিমত বকুনি দিচ্ছে। বলতে দেখা যায়, যেন তার চুল কাটা না হয়। আধো-আধো গলায় কান্না মিশ্রিত স্বরে হিন্দি বুলিতে সে কাটিংওয়ালা কাকুকে বলছে, “অনুশ্রুত কি বাল মাত কাটো।”

তার সেই সারল্য ভরা ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়েছিল। অভিনেত্রী ঋতাভরী চক্রবর্তী ও অনুশ্রুতের সারল্যে মুগ্ধ হয়ে সেই ভিডিও শেয়ার করেছিলেন। সম্প্রতি অনুশ্রুতের আরও একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। এটি তার দ্বিতীয় বার চুল কাটার ভিডিও। এই ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, আধো আধো বুলিতে কান্নাভেজা স্বরে কাটিংওয়ালা কাকুর সাথে রীতিমতো কথা বলে যাচ্ছে সে। চুল কাটার ব্যাপারে এখনও সে যে সহমত নয়, তা এই ভিডিওটিতেও স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে।

দুদিন আগেই অনুশ্রুতের বাবা অনুপ পেটকর তার ছেলের নতুন এই ভিডিওটি শেয়ার করেন।এই ভিডিওটি যে অনুশ্রুতের দ্বিতীয় বার চুল কাটার ভিডিও তা বোঝাতে তিনি ক্যাপশনে লেখেন, “আমার ছেলে অনুশ্রুতের হেয়ারকাট-২.১।” আর ব্যাস দেখতে দেখতে এই ভিডিওটিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়ে যায়।

ভাইরাল ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, কাটিংওয়ালা কাকু অনুশ্রুতকে জিজ্ঞেস করছেন, “আপকো ক্যায়সা লাগ রাহা হে কাটিং করনে মে?” তখন কাঁদতে কাঁদতে বিরক্তির সাথে অনুশ্রুত বলছে, “নেহি, আচ্ছা নেহি লাগ রাহা।” তখন কাটিংওয়ালা কাকু অনুশ্রুতকে আবার বলেন, “কিউ আচ্ছা নেহি লাগ রাহা হে আপকো?” অনুশ্রুত তখন নাক মুখ কুঁচকে জবাব দেয়, “গন্দা।”বতখন কাটিংওয়ালা কাকু জবাব দেয়, “কিউ গন্দা লাগ রাহা হে আপকো?” অনুশ্রুত তখন বলে, “আপ লোক গন্দা হো।”

অর্থাৎ চুল কাটতে তার একেবারেই ভাল লাগছে না। এরপর কাটিংওয়ালা কাকুকে সে জিজ্ঞেস করে, কেন ঐ কাকু নাগপুরে এসেছেন। কাটিংওয়ালা কাকু তখন বলেন, সে অনুশ্রুতের চুল কাটতেই এখানে এসেছেন। তখন অনুশ্রুত আর‌‌ও রেগে গিয়ে জানাই, সে কাটিংওয়ালা কাকুকে জলে চুবিয়ে তার চুলও কেটে দেবে।

এরপর কাটিংওয়ালা কাকু যখন জিজ্ঞেস করেন, “তুমি আমার চুল কাটবে, তুমি চুল কাটতে পারো? দেখাও দেখি কীভাবে চুল কাটবে?” তখন অনুশ্রুত কাটিংওয়ালা কাকুর নকল করে দেখায় যে কীভাবে কাটতে হয়।

এরকম মজার কথোপকথন দুজনের মধ্যে চলতেই থাকে এক সময় দেখা যায় যে অনুশ্রুত জিজ্ঞেস করছে, “আর কতক্ষণ চুল কাটবে?” তখন কাটিংওয়ালা কাকু বলেন, “উপরের দিকটা কাটতে হবে।” তখন অনুশ্রুত বলে, “উপরের দিকের চুল কাটতে হবে না তাহলে তাকে বাজে লাগবে দেখতে।” এরপরও যখন কাটিংওয়ালা কাকু তার কথা শোনে না, তখন আতঙ্কের স্বরে অনুশ্রুত চিৎকার করে ওঠে, “টাকলু হো জায়ুঙ্গা।”

টাক পড়ে যাওয়ার ভয়ে অনুশ্রুতের সেই মুখ ভোলার নয়। সব মিলিয়ে অনুশ্রুতের সারল্য মিশ্রিত এই কথোপকথনও নেটিজেনদেরকে ছেলেবেলার কথা মনে করিয়ে দিয়েছে। কারণ শৈশবে চুল কাটার প্রতি এরকম আতঙ্ক সব শিশুদেরই থাকে, অনুশ্রুতের ক্ষেত্রে সেটা জনসমক্ষে এসেছে। তাই অনুশ্রুতের এই চুল কাটার ভিডিও যেন চুল কাটতে অনিচ্ছুক সকল শিশুদেরই প্রতিনিধিত্ব করছে।

শেয়ার করুন

Check Also

দয়া করে আমা’র পরিবারকে শ্রদ্ধা করুন: টম ই’মাম

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাই’রাল হয় টম ই’মাম দম্পতির ছবি। বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আ’মেরিকান নাগরিক …