ক্ষুব্ধ হয়ে আমেরিকা চলে গেলেন ইশরাক

ক্ষুব্ধ হয়ে আমেরিকা চলে গেলেন ইশরাক

প্রত্যাশিত পদ না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে আমেরিকা চলে গেলেন ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির নতুন কমিটিতে প্রত্যাশিত পদ পাননি তিনি। কমিটি ঘোষণার পর দিন মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে একটি ফ্লাইটে তিনি আমেরিকা চলে যান ইশরাক।

শিগগিরই তার লন্ডন যাওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের সঙ্গে তিনি দেখা করতে চান।

যদিও ইশরাকের ব্যক্তিগত সহকারী সুজন মাহমুদ বলেছেন, মঙ্গলবার ভোর ৪টায় একটি ফ্লাইটে তিনি (ইশরাক) আমেরিকায় যান। আগে থেকে এ সময়সূচি নির্ধারিত ছিল। ব্যক্তিগত কাজে তিনি সেখানে গেছেন।

ইশরাকের ঘনিষ্ঠ একাধিক বিএনপি নেতা সাংবাদিকদের জানান, কমিটি চূড়ান্ত হওয়ার খবর আগেই জেনেছিলেন ইশরাক। তাই তিনি আমেরিকা যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। দক্ষিণের সদস্যসচিবের পদপ্রত্যাশী ছিলেন তিনি। আহ্বায়ক হিসাবে হাবিব উন নবী খান সোহেল ও সদস্য সচিব হিসাবে তাকে রাখার জন্য ইশরাক বিএনপির সিনিয়র কয়েকজন নেতাসহ ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে অনুরোধও করেছিলেন। দায়িত্বশীল দুজন সিনিয়র নেতা তাকে সদস্য সচিব করার ব্যাপারে আশ্বস্তও করেন।

কিন্তু কমিটিতে তাকে এক নম্বর সদস্য রাখা হয়। নেতারা জানান, কমিটি ঘোষণার পরপরই ইশরাকের সঙ্গে কয়েকজন নেতা কথা বলেন, দেখাও করেন। প্রত্যাশিত পদ না পেয়ে ক্ষুব্ধ হলেও ইশরাক তাদের জানান, ‘আমার নেতা তারেক রহমান। তার নির্দেশ মতোই রাজনীতি করছি। ভবিষ্যতেও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের নির্দেশনা মেনে সবাই মিলেমিশে কাজ করব।’

অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়র প্রয়াত সাদেক হোসেনের বড় ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন। বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির সদস্য তিনি। সর্বশেষ ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপির টিকিটে অংশ নেন ইশরাক। সে সময় উচ্চ শিক্ষিত তরুণ নেতা ইশরাক ব্যাপক পরিচিতি পান। পরবর্তীতে বিএনপির সব কর্মসূচিতে তাকে সক্রিয়ভাবে দেখা যায়। এছাড়া মহানগর দক্ষিণের বিভিন্ন ওয়ার্ডে তাকে ঘুরে ঘুরে দলীয় নেতাকর্মীদের খোঁজ-খবর ও ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সহায়তা করতে দেখা গেছে।

শেয়ার করুন