করোনা পরীক্ষার খরচ শুনে মাথায় হাত শ্রীলেখার

করোনা পরীক্ষার খরচ শুনে মাথায় হাত শ্রীলেখার

প্রথমে সুইৎজারল্যান্ড, তারপর ভেনিস। বিদেশে দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন শ্রীলেখা মিত্র। কিন্তু আচমকা মাথায় হাত তার। করোনা পরীক্ষা করাতে গিয়ে তার খরচ হয়েছে ১১২ ইউরো, ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১০ হাজার রুপি। তাতেই মাথায় হাত দিয়ে ভেনিসের রাস্তায় বসে পড়েছেন এই টলিউড তারকা।

রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভেনিসে রাস্তায় মাথায় হাত দিয়ে বসে পড়ার ছবি পোস্ট করেন শ্রীলেখা মিত্র। ক্যাপশনে লেখেন, ‘আরটিপিসিআর টেস্ট করাতে ১১২ ইউরো খরচ হলো, অর্থাৎ ১০ হাজার রুপি..!!!! ভেনিসে মাথায় হাত অভিনেত্রীর।’

ভারতের সাংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন জানায়, বিদেশ বিভুঁইয়ে গিয়ে একের পর এক কাণ্ড ঘটিয়ে চলেছেন শ্রীলেখা। এর আগে নিজেকে দেউলিয়া ঘোষণা করেছিলেন এই অভিনেত্রী। ৬০ ইউরো (৫ হাজার রুপির থেকেও বেশি) দিয়ে প্রাইভেট বোট ট্যাক্সি ভাড়া করে লিডো থেকে গিয়েছিলেন ভেনিসে। তার জেরেই ফেসবুকে ছবি পোস্ট করে লেখেন, ‘দেউলিয়া হয়ে গেলাম।’

ভেনিসের রেস্তোরাঁয় খেতে গিয়ে ঘটে আরেক কাণ্ড। হঠাৎই তার চোখ পড়ে রেস্তোরাঁর এক সুপুরুষের দিকে! তার কথাতেই অর্ডার দিয়ে ফেলেন এক মাছের রেসিপি। মজা করে খাওয়ার পর বিল পেয়ে শ্রীলেখা বুঝতে পারেন, সুন্দর ব্যাপারটা আসলে কতটা ভয়ংকর! বিলের অঙ্ক দেখে তার চক্ষু চড়ক গাছ। বিলে হয়েছে ৬৩ দশমিক ২০ ইউরো অর্থাৎ ৫ হাজার রুপির থেকেও বেশি।

এরপর খাবার ও বিলের পাশাপাশি সেই সুপুরুষের সঙ্গে তোলা সেলফিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখেন, ‘এই সেই কালনাগিনী মাছ। সুন্দর ছেলে দেখে দাম জিজ্ঞেস না করার ফলে এই যে বিল।’উল্লেখ্য, ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে আমন্ত্রণ পেয়েছে পরিচালক আদিত্য বিক্রম সেনগুপ্তের ছবি ‘ওয়ান্স আপন আ টাইম ইন কলকাতা’। এই ছবিতেই গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন শ্রীলেখা। সেই উপলক্ষেই তার এই ভেনিস যাত্রা।

শেয়ার করুন