এশিয়া কাপ বাতিল!

বাতিল হয়েছে এবারের এশিয়া কাপ! ক্ষমতাশালী ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড-বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি অন্তত তেমন কথাই বলছেন। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি) বা ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি অবশ্য এখনো এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানায়নি।

নিজের ৪৯তম জন্মদিনে কলকাতার জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বিভিন্ন ইস্যুতে কথা বলেছেন সৌরভ। সেখানেই এশিয়া কাপ বাতিলের তথ্য জানান ভারতীয় বোর্ডের প্রধান।

এক প্রশ্নের জবাবে সৌরভ বলেন, ‘এশিয়া কাপ বাতিল হয়ে গিয়েছে। এ বারে আর হচ্ছে না। আমরা আইসিসির সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করছি। দেখা যাক, কবে তারা চূড়ান্ত ঘোষণা করে।’

এশিয়া কাপ বিষয়ে চূড়ান্ত ঘোষণা আসার পর স্থগিত হয়ে থাকা আইপিএল আয়োজনের কথা ভাববে ভারত বললেন সৌরভ, ‘(এশিয়া কাপ নিয়ে) চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসর পর আমরা আইপিএল নিয়ে সিদ্ধান্ত নেব। আমরা মাথায় রাখছি, যদি অক্টোবর-নভেম্বরের দিকে পরিস্থিতির উন্নতি হয় তবে আইপিএল করা যায়। এই মুহূর্তে তার আগে ক্রিকেট শুরু হওয়ার সম্ভাবনা দেখছি না।’

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়েও কথা বলেছেন বিসিসিআই বস। সৌরভ জানালেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আর করোনা পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে আইপিএলের ভাগ্য, ‘আমরা চেষ্টা করছি আইপিএল আয়োজন করার। তবে নানা বিষয়ের উপরে তা নির্ভর করবে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হয় কি না সেটা দেখার বিষয়। দুটি বড় টুর্নামেন্ট এই কঠিন পরিস্থিতিতে এত অল্প সময়ের মধ্যে জায়গা করানো কঠিন হবে। তার চেয়েও বড় কথা, করোনা নিয়ে পরিস্থিতি কী দাঁড়ায়, সেটা দেখতে হবে। এই মুহূর্তে সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, মানুষের সুরক্ষা এবং নিরাপত্তা। তার সঙ্গে আপস করে কোনও কিছু করা হবে না। জীবনের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু নয়। খেলার অনেক সময় রয়েছে।’

সব দিক ভেবে আইপিএলের জন্য সময় বের করা গেলে ভারতের মাটিতেই আয়োজনের চেষ্টা করা হবে। বিকল্প হিসেবে শ্রীলঙ্কা বা সংযুক্ত আরব আমিরাতের কথাও ভাবছে বিসিসিআই বলছেন সৌরভ, ‘আমরা চেষ্টা করছি, দেশেই করার। আবারও বলছি, সেটা সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভর করবে দেশের পরিস্থিতির উপরে। অক্টোবর-নভেম্বরে যদি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ না হয় এবং আমাদের দেশের পরিস্থিতিতে অনেকটা উন্নতি হয়, তা হলে দেশেই আইপিএল করার কথা ভাবা যেতে পারে। শ্রীলঙ্কা আর দুবাই নিয়ে কথাবার্তা চলছে। তবে আমাদের প্রথম পছন্দ অবশ্যই নিজেদের দেশে করা। যদি পরিস্থিতির উন্নতি হয় তবেই তা সম্ভব। আইপিএলে যে আটটা শহরের দল খেলে, তার মধ্যে পাঁচটা শহরেই করোনার প্রকোপ সাংঘাতিক। সেটাও মাথায় রাখতে হবে।’

সৌরভ জানান, আইপিএল না হলে চার হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হবে ভারতের। তবে বিশ্বকাপ না হলে সেটা যে ক্রিকেট খেলুড়ে সব দেশের জন্যই ক্ষতি সেটাও উল্লেখ করলেন তিনি, ‘আইসিসি হয়তো চেষ্টা করছে (বিশ্বকাপ আয়োজনে। সব দিক ভাল ভাবে দেখে নিতে যে, বিশ্বকাপ আয়োজনের আর কোনও সম্ভাবনা আছে কি না। বিশ্বকাপ থেকে হওয়া মুনাফা থেকে সব দেশকে আর্থিক অনুদানও দেওয়া হয়। তা থেকে ক্রিকেট উন্নয়নের অনেক কাজ হয়। নানা দিক নিয়ে ভাবতে হচ্ছে। তাই হয়তো আইসিসি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে উঠতে পারেনি।’

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: