এবার ‘রেড জোন’ হচ্ছে ওয়ারী

করোনাভাইরাস বিস্তার প্রতিরোধে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারের পর এবার ‘রেড জোন’ হচ্ছে ওয়ারী। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোর মধ্যে ওয়ারীর নির্দিষ্ট কিছু এলাকাকে পরীক্ষামূলকভাবে রেড জোন ঘোষণার সুপারিশ করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

শনিবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত করোনাবিষয়ক অনলাইন বুলেটিনে স্থংস্থাটির অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ঢাকা মহানগরের ওয়ারীর নির্ধারিত এলাকা চিহ্নিত করে সেখানে পরীক্ষামূলকভাবে রেড জোন বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক জানান, পরামর্শক কমিটির গাইডলাইন অনুযায়ী পূর্ব রাজাবাজারে রেড জোন চলমান রয়েছে। স্থানীয় পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে যেখানে যেমন প্রয়োজন সেভাবে রেড জোন বাস্তবায়নের কাজ অব্যাহত রয়েছে।

তিনি বলেন, জোনিং নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকের সভাপতিত্বে ১৩ সদস্যের একটি দল কাজ করে যাচ্ছে। স্থায়ীভাবে কোনো অঞ্চল বা এলাকাকে রেড জোন ঘোষণা বা বাতিল করা হয়নি। রেড জোন, গ্রিন জোন বা ইয়েলো জোনিং একটি চলমান প্রক্রিয়া। যা সংক্রমণ বিস্তারের সর্বাধিক, মাঝারি ও কম ঝুঁকির ওপর নির্ভর করে।

প্রসঙ্গত, দেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত ও ১৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগীর মৃত্যুর পর ২৬ মার্চ থেকে টানা ৩১ মে পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করে সাধারণ ছুটি দেয় সরকার। কিন্তু কার্যত এই ‘লকডাউনে’ করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসেনি। এ অবস্থায় শনাক্ত ও মৃত্যুর হার বিবেচনায় নিয়ে সারা দেশকে রেড, ইয়েলো ও গ্রিন জোনে ভাগ করে এলাকাভিত্তিক কঠোর ‘লকডাউনে’ যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

শেয়ার করুন