এক ট্রলারে ৮৭ মণ ইলিশ, বিক্রি ২৭ লাখ

এক ট্রলারে ৮৭ মণ ইলিশ, বিক্রি ২৭ লাখ

গভীর বঙ্গোপসাগরে এক ট্রলারে ৮৭ মণ ইলিশ ধরা পড়েছে। সেই মাছ বিক্রি করা হয়েছে ২৭ লাখ টাকায়। শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে দেশের বৃহত্তম মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে (বিএফডিসি) এফবি সাইফ-২ ট্রলারে ওই মাছ নিয়ে আসা হয়। পরে তা ২৭ লাখ টাকায় কিনে নেয় সেমার্স সাইফ ফিশিং কোম্পানি অ্যান্ড কমিশন এজেন্ট।

শিল্পপতি মোস্তফা ইকবাল হোসেন মানিকের মালিকানাধীন এফবি সাইফ-২ ট্রলারের মাঝি মো: জামাল হোসেন জানান, কয়েক দিন আগে বাজার সদায় নিয়ে গভীর সাগরে মাছ শিকার করতে যান তারা। সাগরে গিয়ে মাছ ধরার জন্য কয়েকটি খেও (সমুদ্রে জাল ফেলা) দিতেই প্রচুর পরিমাণে বড় বড় সাইজের রূপালী ইলিশ মাছ ধরা পরে।

ট্রলারের মাছ রাখার জায়গা না থাকায় দ্রুত পাথরঘাটা মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে (বিএফডিসি) ঘাটে বৃহস্পতিবার রাতে আসেন ট্রলার নিয়ে। শুক্রবার সকাল থেকেই মাছ বিক্রি শুরু হয়ে দুপুর ১২টার দিকে শেষ হয়। ওই মাছ কিনেছে সেমার্স সাইফ ফিশিং কোম্পানি অ্যান্ড কমিশন এজেন্ট।

এ দিকে এক ট্রলারে এত মাছ ধরা পরায় বিএফডিসি মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে উৎসুক মানুষের ভিড় দেখা গেছে। স্থানীয় অনেকে বলেছেন, এই প্রথম একসাথে একটি ট্রলারে বড় বড় এত ইলিশ দেখলাম। একেকটি মাছের ওজন ছিল দেড় থেকে দুই কেজি।

মেসার্স সাইফ ফিশিং কোম্পানির স্বত্বাধিকারী পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা গোলাম কবির বলেন, বর্তমানে ইলিশের ভরা মৌসুম। কিন্তু এখন পর্যন্ত কাঙ্ক্ষিত ইলিশ জেলেদের জালে ধরা না পরলেও একটি ট্রলারে এত মাছ নজিরবিহীন।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, পাথরঘাটার মৎস্য খাতে এটি নজির।

শেয়ার করুন