আগামী ৫ দিন বৃষ্টি, বড় বন্যার আভাস!

মৌসুমী ভারী বর্ষণের প্রভাবে চলতি মাসে আরো বড় বন্যার আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এ ক্ষেত্রে মধ্যমেয়াদী বন্যা হতে পারে। জুনের শেষ দিকে শুরু হওয়া স্বল্পমেয়াদী বন্যা পরিস্থিতি এখনো রয়েছে। এদিকে, মৌসুমী বায়ুর অক্ষ পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ,

মধ্যপ্রদেশের পূর্বাংশ,বিহার,পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে দুর্বল থেকে মাঝারী অবস্থায় বিরাজ করছে। এ কারণে দেশে আগামী পাঁচদিন বজ্রসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

আবহাওয়া অধিদফতরের এক পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়; ঢাকা ও খুলনা বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রাজশাহী বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

ঢাকার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আকাশ অস্থায়ীভাবে মেঘলা থেকে মেঘাচ্ছন্ন থাকতে পারে।অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজধসহ বৃষ্টি হতে পারে। দক্ষিণ/দক্ষিণ পূর্ব দিক থেকে ৬-১২ কিমি/ঘণ্টা বেগে বাতাস প্রবাহিত হতে পারে যা অস্থায়ীভাবে দমকায় ৩০ কি:মি:পর্যন্ত। দিনের তাপমাত্রা (১-৩) সে. হ্রাস পেতে পারে। নদীবন্দরের সতর্কবার্তায় আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল,পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্রগ্রাম

এবং কক্সবাজার অঞ্চলসমূহের উপর দিয়ে পূর্ব/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘন্টায় ৪৫-৬০ কি.মি. বেগে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দর সমূহকে ১ নম্বর সর্তকতা সংকেত (পুনঃ) ১ নম্বর সর্তকতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন, জুলাই মাসে বাংলাদেশে সার্বিকভাবে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হবে। বঙ্গোপসাগরে এক থেকে দু’টি বর্ষাকালীন লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে, যার মধ্যে একটি বর্ষাকালীন নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে।

এছাড়া চলতি মাসে মৌসুমী ভারী বৃষ্টিপাতজনিত কারণে দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-মধ্যাঞ্চল এবং মধ্যাঞ্চলের কতিপয় স্থানে মধ্যমেয়াদী বন্যা পরিস্থিতি বিরাজ করতে পারে। অপরদিকে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল এবং দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের কতিপয় স্থানে স্বল্পমেয়াদী বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হওয়ার শঙ্কা রয়েছে।

অর্থাৎ জুনের বন্যার চেয়ে জুলাইয়ে বন্যার বিস্তৃতি ও সময়কাল দু’টোই বাড়ার শঙ্কা রয়েছে। কৃষি আবহাওয়ার বিষয়ে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, জুলাই মাসে দেশের দৈনিক গড় বাষ্পীভবন হবে ৩ দশমিক ৫ থেকে ৪ দশমিক ৫ মি.মি.। এবং গড় উজ্জ্বল সূর্য কিরণকাল ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা থাকতে পারে। অর্থাৎ চলতি সূর্যের প্রখর কিরণের দেখা কমই মিলবে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: