অস্থির পেঁয়াজের বাজার, যা বলছেন আমদানিকারকরা

অস্থির পেঁয়াজের বাজার, যা বলছেন আমদানিকারকরা

দেশের বাজারে বেড়েই চলেছে পেঁয়াজের দাম। সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। ফলে ক্রমেই অস্থির হয়ে উঠেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় এই পণ্যের বাজার। পেঁয়াজের দাম বাড়ায় বিপাকে পড়েছেন নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষ।

ভারত থেকে বাড়তি দামে পেঁয়াজ আনা এবং চাহিদার তুলনায় কম আমদানির কারণে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। এ ছাড়া বন্দর থেকে খুচরা পর্যায়ে চার হাত বদল ও ব্যবসায়ীদের অতি মুনাফা লাভের চেষ্টাও দাম বাড়ার কারণ। সেই সঙ্গে বাজারে দেশীয় পেঁয়াজের সরবরাহ কমে দাম বাড়ায় আমদানিকৃত পেঁয়াজের দাম বাড়ছে বলে দাবি আমদানিকারকদের।

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক মোবারক হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ভারতীয় ব্যবসায়ীরা পেয়াজের দাম বাড়িয়ে দেওয়ায় মূলত দেশের বাজারে দাম বেড়েছে। দুই সপ্তাহ আগে ভারত থেকে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১০ থেকে ১৫ রুপিতে কেনা হয়। বাংলাদেশে তা বিক্রি করা হয় ২৬ থেকে ২৭ টাকা কেজি দরে। বর্তমানে

ভারতের বাজারে ২৯ থেকে ৩৫ রুপিতে বিক্রি হচ্ছে। এর সঙ্গে পরিবহন খরচ রয়েছে ৬ রুপির মতো। তাতে বন্দরে পৌঁছাতে প্রতি কেজি ৪০ থেকে ৪৪ টাকার মতো পড়ছে। সেই সঙ্গে শুল্ক আছে তিন থেকে চার টাকা। আমরা বন্দরে পেঁয়াজ বিক্রি করছি ৪৫ থেকে ৪৭ টাকা কেজি দরে। তবে পূজার পর পেঁয়াজের বাজার এমনিতেই কমে আসবে।

এই আমদানিকারক বলেন, আমরা হিলি স্থলবন্দরে যে পেঁয়াজ বিক্রি করছি ৪৫ থেকে ৪৭ টাকায়, তা ঢাকায় হয়ে যাচ্ছে ৭০ টাকা। এর মূল কারণ, অতি মুনাফালোভী কিছু ব্যবসায়ী ও ফড়িয়া। বন্দরে পাইকারিতে বিক্রি করছি ৪৫ থেকে ৪৭ টাকা। যেসব পাইকার বন্দর থেকে গাড়িভাড়া দিয়ে পেঁয়াজ কিনে নিয়ে যাচ্ছেন তারা মোকামে বিক্রি করছেন ৫৫ টাকায়। তাদের কাছ থেকে তৃতীয় পক্ষ নিয়ে গিয়ে সেই পেঁয়াজ বিক্রি করছে ৬০ টাকায়। খুচরা পর্যায়ে ডালিতে বিক্রি করছে ৭০ টাকা কেজি দরে।

হিলির পেঁয়াজ আমদানিকারক মাহফুজার রহমান বলেন, চলতি মৌসুমে ভারতের যেসব অঞ্চলে পেঁয়াজ উৎপাদন বেশি হওয়ার কথা, সেখানে উৎপাদন কম হয়েছে। এর ওপর সম্প্রতি অতিবৃষ্টি ও বন্যায় কিছু অঞ্চলের পেঁয়াজ নষ্ট হয়েছে। তাই সেখানে পেঁয়াজের সরবরাহ কমে দাম বাড়তির দিকে। এই মুহূর্তে বাংলাদেশের চাহিদা মেটাতে প্রতিদিন হিলি দিয়ে ৪০ থেকে ৫০ ট্রাক পেঁয়াজ আমদানি হওয়ার কথা। কিন্তু সেখানে বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ ট্রাক।

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত রয়েছে। আমদানি কিছুটা বেড়েছে। গত সপ্তাহে বন্দর দিয়ে পাঁচ থেকে ১০ ট্রাক পেঁয়াজ আমদানি হতো। বর্তমানে ২০ থেকে ২৫ ট্রাক আমদানি হচ্ছে।

শেয়ার করুন