অভিনেতারাও শুয়েই কাজ জোগাড় করেন, শ্রীলেখাকে স্বস্তিকা

সম্প্রতি এক ফেসবুক পোস্টে শ্রীলেখা অভিযোগ করে জানান, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের ‘প্রেম’ থাকার জন্যই নাকি তিনি ‘বুম্বাদা’র বিপরীতে অনেক ভাল ছবির নায়িকা হতে পারেননি। এবার সেই পোস্টের কড়া জবাব দিয়ে আরেক পোস্ট করলেন স্বস্তিকা মুখার্জি।

সেই পোস্টে শ্রীলেখার দাবি করেছিলেন, যারা প্রযোজক-পরিচালকদের সঙ্গে অবলীলায় শুতে বসতে পারেন তারা মুঠো মুঠো কাজ পান। তিনি সেটাও পারেননি, মাথার ওপরে গডফাদারও নেই। ফলে, তিনি সুশান্ত সিং রাজপুতের যন্ত্রণা অনুভব করতে পারছেন।

এরই ধারাবাহিকতায় বিষ্ফোরক পোস্ট করে বসলেন স্বস্তিকা। অবশ্য ঋতুপর্ণা নীরব ভূমিকাই পালন করেছেন এক্ষেত্রে। স্বস্তিকা লেখেন- নাম না করে এবার তার ছোট্ট প্রশ্ন, যে সব অভিনেতা এক পরিচালকের একাধিক ছবিতে অভিনয় করেন তারাও কি ‘শুয়ে বসে’ই কাজ জোগাড় করেন?

স্বস্তিকা বলেন, ‘যখন কোনও অভিনেত্রী কোনও পরিচালককের সঙ্গে এক বা একের বেশি ছবি করে তখন বলা হয়, সে শুয়ে বা প্রেম করে কাজটা পেয়েছে। বেশ। তা, আমি এক পরিচালকের সঙ্গে তার জীবনের ১৭টা ছবির মধ্যে আড়াইখানা ছবি করেছি (২টি মুখ্য চরিত্র, একটি অতিথি শিল্পী)।

কিন্তু যেহেতু এই পরিচালকের সঙ্গে সৌমিক হালদার ১১টা, অনুপম রায় ৯টা, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ৭টা, যিশু সেনগুপ্ত ৭টা, অনির্বাণ ভট্টাচার্য ৬টা এবং পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় ৬টা কাজ করেছেন, তারা নিশ্চয়ই আরও বেশি করে শুয়ে আর প্রেম করে কাজগুলো পেয়েছেন? এনারা তা হলে সবাই উভকামী ও সুযোগসন্ধানী? যুক্তি তো সবার ক্ষেত্রেই এক হওয়া উচিত, তাই না? নাকি নিজের খামতি ঢাকতে স্লাট শেমিং শুধু আমাদের মতো ‘কুযোগ্য’ অভিনেত্রীদের করা হবে যারা একেবারেই অভিনয়টা পারে না?

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এই বিভাগের আরো খবর
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: